কিভাবে Bhoot.Com (ভুত ডট কম) ডাউনলোড করবেন | Rj Russell এর সবগুলো New Episode Download করুন সহজেই

কিভাবে Bhoot.Com (ভুত ডট কম) ডাউনলোড করবেন | Rj Russell এর সবগুলো New Episode Download করুন সহজেই

 Website Link: https://radio-episode.bdlove24.com/

Name: Bhoot.com

From: Shadhin Music App

 Episodes: 1st Episode to Last Episode (ALL)

Bhoot.com,ভুত ডট কম ,Download Bhoot.com,Bhoot.com Live,Live streaming Bhoot.com,Bhoot.com youtube live,how to Download Bhoot.com, Kivabe Bhoot.com Download korbo, Bhoot.com কিভাবে ডাউনলোড,কিভাবে Bhoot.com ডাউনলোড করবেন,ভুত ডট কম ডাউনলোড , ডাউনলোড ভুত ডট কম,ভুত ডট কম লাইভ,ভুত ডট কম ইউটিউব,ভুত ডট কম লাইভ কিভাবে শুনবো,ভুত.কম,ভুত ডট কম new episode Download,Bhoot.com new episode,Bhoot fm .com lastest Episode,Bhoot.com fm Today Live episode,Download new Bhoot com ভুত ডট কম

পঙ্গপাল কি ? আল্লাহ্‌র গজব | বাংলাদেশে আসবে কি | Locust Swarm

পঙ্গপাল কি ? আল্লাহ্‌র গজব | বাংলাদেশে আসবে কি | Locust Swarm
পঙ্গপাল কী?
পঙ্গপাল মূলত এক প্রকার পতঙ্গ। এটি আর্কিডিডি পরিবারে ছোট শিংয়ের বিশেষ প্রজাতি যাদের জীবন চক্রে দল বা ঝাঁক বাঁধার পর্যায় থাকে। এই পতঙ্গগুলো সাধারণত একা থাকে। তবে বিশেষ অবস্থায় তারা একত্রে জড়ো হয়। তখন তাদের আচরণ ও অভ্যাস পরিবর্তিত হয়ে সঙ্গলিপ্সু হয়ে পড়ে। পঙ্গপাল ও ঘাস ফড়িংয়ের মধ্যে কোন পার্থক্যগত শ্রেণীবিন্যাস নেই। বিশেষ অবস্থায় তাদের প্রজাতিগুলোর একত্রিত হওয়ার যে স্বতন্ত্র প্রবণতা দেখা যায় সেটাই মূল পার্থক্য।
নতুন ধরনের পঙ্গপালের ১০ লাখ পতঙ্গের একটি ঝাঁক একদিনে ৩৫ হাজার মানুষের খাবার খেয়ে ফেলতে পারে। আগামী এপ্রিলে এই পঙ্গপাল নতুন করে বংশবৃদ্ধি করতে পারে। এ সময়টিকে পঙ্গপালের বংশবৃদ্ধির সময় বলে বিবেচনা করা হয়।
কতটা ভয়ঙ্কর এই পঙ্গপাল?
১৯৯৩ সালে ব্যাপক আকারে পঙ্গপালের আক্রমণের মুখে পড়ে পাকিস্তান। এই ধাপে ২০১৯ সালের মার্চে পাকিস্তানে প্রথম পঙ্গপালের আক্রমণ শনাক্ত হয়। পরে এটি সিন্ধু, দক্ষিণ পাঞ্জাব ও খাইবার পাখতুনওয়া প্রদেশের ৯ লাখ হেক্টর এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। ক্ষতিগ্রস্ত হয় কোটি কোটি রুপি মূল্যের ফসল ও গাছপালা।
ভারত-পাকিস্তানের বাইরে সৌদি আরবও পঙ্গপালের আক্রমণের মুখে পড়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, পতঙ্গটির আক্রমণ দেশটির কৃষি খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের জন্য ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করেছে।
আফ্রিকায় পরিস্থিতি সামাল দিতে ৭ কোটি ডলারের অনুদান চেয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন। সংস্থাটির প্রধান মার্ক লোকক বলেন, আফ্রিকায় এই ভয়াবহ পঙ্গপাল উদ্বেগজনক হারে ফসল ধ্বংস করছে। ইতোমধ্যেই খাদ্য স্বল্পতায় থাকা পরিবারগুলো তাই আরও বিপাকে পড়েছে।
ধর্মীয় গ্রন্থে পঙ্গপালের উল্লেখ
পঙ্গপালের ইতিহাস বহু পুরনো। প্রাচীন মিসরীয়দের কবরে এর ছবি দেখা যায়। এছাড়া গ্রিসের ইলিয়াডে এই পতঙ্গের কথা উল্লেখ রয়েছে। বাইবেল এবং কোরআন এর মতো ধর্মগ্রন্থেও পঙ্গপালের কথা বলা হয়েছে। ধর্মগ্রন্থে এই পতঙ্গকে ঈশ্বরের শাস্তিস্বরূপ পদক্ষেপ হিসেবে বর্ণনা করা রয়েছে।
প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা
পঙ্গপাল নিয়ন্ত্রণে বাতাসে বা মাটিতে কীটনাশক ব্যবহারের প্রচলন রয়েছে। তবে আফ্রিকায় পঙ্গপালের যে ভয়াবহতা তাতে শুধু কীটনাশক ব্যবহারে ফল মিলবে না বলে মনে করছেন জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা। তাই পরিস্থিতি মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।
বিশ্লেষকরা পঙ্গপালের আক্রমণে সৃষ্ট এই পরিস্থিতির জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করছেন। জাতিসংঘের পঙ্গপাল পূর্বাভাস বিষয়ক কর্মকর্তা কিথ ক্রিসম্যান বলেন, ওমানের মরুভূমিতে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে অনেক বৃষ্টি হওয়ায় এই পঙ্গপালগুলো আফ্রিকায় চলে গেছে। তিনি বলেন, আমরা জানি ঘূর্ণিঝড় থেকেই্ এই পতঙ্গের আগমন ঘটে। বিগত ১০ বছরে ভারত সাগরে ঘূর্ণিঝড়ের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

Search Tags::

পঙ্গপাল,পঙ্গপাল কি খায়,পঙ্গপালের আক্রমন,পঙ্গপাল মানে কি,পঙ্গপাল খাওয়া,পঙ্গপাল এর ছবি,কোরআনে পঙ্গপাল,পঙ্গপালের খাবার,পঙ্গপাল বাংলাদেশে,পঙ্গপাল ভারতে,পঙ্গপাল পাকিস্তানে,পঙ্গপাল আল্লাহর গজব,পঙ্গপাল,পঙ্গপাল কি,পঙ্গপাল কি খায়,পঙ্গপাল আক্রমণ,পঙ্গপাল কি ভাবে খায়,পঙ্গপাল কী,পঙ্গপাল কেন আসে,পঙ্গপাল মহামারি,পঙ্গপালের হানা,পঙ্গপাল তাড়াতে গুলি,মরুর পঙ্গপাল,পঙ্গপাল খাওয়া কি হালাল,Locust,Locust swarm

আয়কর রিটার্ন দাখিলের প্রস্তুতি নির্দেশিকা ২০২০ ও কি কি ডকুমেন্ট/কাগজপত্র লাগবে জেনে নিন

আয়কর রিটার্ন দাখিলের প্রস্তুতি নির্দেশিকা ও কি কি ডকুমেন্ট/কাগজপত্র লাগবে জেনে নিন
 আপনি জানেন কি আয়কর রিটার্নের সাথে কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হবে? এবং এগুলো কোথা থেকে সংগ্রহ করতে হবে? নিচে থেকে জেনে নিন আপনার আয়কর রিটার্নের সাথে কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হবে এবং এগুলো কোথা থেকে সংগ্রহ করবেন।

বেতন বিবরণী এবং ব্যাংক বিবরণী
চাকরীজীবী করদাতাকে তার কোম্পানি থেকে বেতন বিবরণী সংগ্রহ করতে হবে। সারা বছর ধরে মূল বেতন, বাড়ি ভাড়া ভাতা, যাতায়াত ভাতা, চিকিৎসা ভাতা, বোনাসসহ মোট কত টাকা পেয়েছেন এবং তার উপর কত টাকা উৎসে কর কর্তন হয়েছে এই তথ্য উল্লেখ করে বেতন বিবরণী নিতে হবে।
জুন মাস শেষ হয়ে যাওয়ার পর আপনি হিসাব বিভাগ বা মানবসম্পদ বিভাগ যেখান থেকে বেতন বিবরণী দেওয়া হয়ে থাকে সেখানে যোগাযোগ করে আপনি বিতন বিবরণী সংগ্রহ করতে পারেন।
এর সাথে লাগবে আপনার যে ব্যাংক হিসেবে প্রতি মাসে কোম্পানি থেকে বেতন ট্রান্সফার হয় তার জুলাই থেকে জুন পর্যন্ত সারা অর্থ বছরের ব্যাংক বিবরণী। বছর শেষ হওয়ার পরে ব্যাংকে গিয়ে এটা সংগ্রহ করতে পারেন।

বাড়ি ভাড়ার চুক্তিনামা, ভাড়ার রশিদ এবং ব্যাংক বিবরণী
যেসব করদাতার আয় বাড়ি ভাড়া থেকে আসে তাদেরকে ভাড়াটিয়ার সাথে যে চুক্তিনামা সম্পাদন হয়েছে তার কপি রিটার্নের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। তাছাড়া প্রতি মাসে ভাড়া নেয়ার সময় ভাড়াটিয়াকে যে রশিদ দেয়া হয় তার কপিও সাথে দিতে হবে।
বাড়ি ভাড়া মাসে পচিশ হাজার টাকার সমান বা উপরে হলে যাবতীয় বাড়ি ভাড়া থেকে প্রাপ্ত আয় ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা করতে হয়। বাড়ী ভাড়া থেকে আয়ের প্রমান হিসেবে সারা বছরের ব্যাংক বিবরণী দাখিল করতে হবে।
বাড়ি তৈরির ক্ষেত্রে ব্যাংক ঋণের বিবরণী
বাড়ি তৈরি করার সময় যদি ঋণ নিয়ে থাকেন তাহলে সেই ব্যাংক ঋণের বিবরণী সাথে জমা দিতে হবে। ঋণের কিস্তি পরিশোধ করার সময় সাথে সুদও পরিশোধ করতে হয়। সেই সুদ বাড়ি ভাড়া আয় থেকে বাদ গিয়ে করযোগ্য আয় নির্ণয় করা হয়। তাই সুদের প্রমান হিসেবে ব্যাংক ঋণের বিবরণী রিটার্নের সাথে দাখিল করতে হয়।
ভূমি রাজস্ব, পৌর কর, সিটি কর্পোরেশন কর, অন্যান্য বিল
বাড়ির মালিককে কর বাবদ সরকারকে ভূমি রাজস্ব দিতে হয়। এছাড়া পৌর কর, সিটি কর্পোরেশন কর, ওয়াসা বিল, গ্যাস বিল, বিদ্যুৎ বিল ইত্যাদিও পরিশোধ করতে হয়। এসব খরচ বাড়ি ভাড়া আয় থেকে বাদ গিয়ে করযোগ্য আয়হ বের করা হয় তাই এই খরচগুলোর প্রমান হিসেবে বিল জমা দেওয়ার কপি রিটার্নের সাথে দাখিল করতে হয়।
স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয়/হস্তান্তর
স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয়/হস্তান্তর এর ক্ষেত্রে দলিলের কপি জমা দিতে হবে।
অন্যান্য উৎসের আয়
আয়কর রিটার্নে মোট দশটি খাত রয়েছে। এর মধ্যে একটি হলো অন্যান্য উৎস হতে আয়। বাকি নয়টা খাতের বাইরে যে আয়গুলো রয়েছে সেগুলো এই খাতে দেখাতে হয়। যেমন, লভ্যাংশ, সঞ্চয়পত্রের সুদ, ব্যাংক জমার উপর সুদ ইত্যাদি। এই সব খাত থেকে আয়ের ক্ষেত্রে লভ্যাংশের ওয়ারেন্ট বা সার্টিফিকেটের কপি, সঞ্চয়পত্র নগদায়নের সময় বা সুদ প্রাপ্তির সময় নেয়া সার্টিফিকেট, ব্যাংক সুদের ক্ষেত্রে ব্যাংক হিসেবের বিবরণী ইত্যাদি আয়কর রিটার্নের সাথে দাখিল করতে হয়।
বিনিয়োগজনিত প্রমাণাদি
একটা ধারনা রয়েছে আয়ের উপর করের পরিমান অনেক বেশি। তাই কেউ কেউ হয়তো আয় লুকাতে চান। কিন্তু অনেকেই জানেন না সঠিক ট্যাক্স প্ল্যানিং মোট আয়করের পরিমান অনেকাংশে হ্রাস করতে পারে। না জানার কারনে কেউ হয়তো আয় লুকাচ্ছেন। আবার কেউ হয়তো আয়কর বেশি দিচ্ছেন। কিন্তু আপনি সঠিক খাতে বিনিয়োগ বা অনুদান দিয়ে তার উপর নির্দিষ্ট হারে কর রেয়াত পেতে পারেন।
তবে আপনাকে বিনিয়োগ বা অনুদানের উপর কর রেয়াত পেতে হলে অবশ্যই জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্ধারিত খাতে টাকা বিনিয়োগ বা অনুদান দিতে হবে। কেবল তখনই আপনি কর রেয়াত দাবি করতে পারবেন।
আপনি যদি বিনিয়োগ করে থাকেন যেমন, শেয়ার ক্রয়, সঞ্চয়পত্র ক্রয়, ডিপিএস, জীবন বীমা প্রিমিয়াম, স্বীকৃত যাকাত তহবিলে দান ইত্যাদি ক্ষেত্রে যদি আপনি বিনিয়োগ বা অনুদান দিয়ে থাকেন তাহলে তার প্রমান হিসেবে প্রমাণাদি রিটার্নের সাথে দাখিল করতে হবে।
আয়কর পরিশোধের প্রমাণাদি
উৎসে কর কর্তনের কথা হয়তো শুনেছেন। যেমন, আপনি যদি চাকরিজীবী হয়ে থাকেন তাহলে হয়তো লক্ষ্য করেছেন মাস শেষে বেতন থেকে আনুমানিক একটি অংক কর হিসেবে কেটে রেখে ব্যাংক হিসেবে বেতন ট্রান্সফার করা হয়েছে। বা ব্যবসা যারা করেন তারা জানেন, পণ্য বিক্রয়ের ক্ষেত্রে মোট বিল থেকে উৎসে কর কর্তন করে বাকি টাকা আপনাকে পরিশোধ করা হয়েছে।
যেহেতু আপনি আয়ের উপর উৎসে কিছুটা কর আগেই দিয়ে দিয়েছেন, তাই বছর শেষে যখন আয়কর রিটার্ন দাখিল করবেন তখন মোট কর দায় থেকে আগে পরিশোধ করা কর বাদ দিয়ে বাকি যেটা থাকবে সেটাই হবে আপনার প্রকৃত করদায়।
এখন এই কর বাদ দেয়ার ক্ষেত্রে যেটা আপনি দাবি করছেন পূর্বে পরিশোধ করেছেন তার প্রমান হিসেবে চালানের কপি, পে-অর্ডার/ব্যাংক ড্রাফট/অ্যাকাউন্ট পেয়ী চেক দাখিল করতে হবে।
বেতন থেকে উৎসে করের ক্ষেত্রে হিসাব শাখা থেকে চালানের কপি সংগ্রহ করে নিতে হবে। আর অন্যান্য ক্ষেত্রে যেখানে আপনার আয়ের উপর উৎসে কর কর্তন করেছে সেখান থেকে কর জমা দেয়ার চালান সংগ্রহ করতে হবে।
সব চালান সংগ্রহ করে আয়কর রিটার্নের সাথে দাখিল করতে হবে।
গত ০১ জুলাই ২০২০ থেকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আয়কর রিটার্ন জমা নেয়া শুরু করেছে। শেষ দিকে ভিড় থেকে বাচার জন্য ইতোমধ্যেই আয়কর রিটার্ন দাখিল করা শুরুও হয়েছে। আয়কর রিটার্ন জমা নেয়া চলবে আগামী ৩০ নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত।
শেষ দিকে তাড়াহুড়া না করে আগে থেকেই উপরে উল্লেখিত দরকারি কাগজপত্র সংগ্রহ করে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং outsourching থেকে অর্জিত আয়ের জন্য কি আয়কর (TAX) দিতে হবে ?

ফ্রিল্যান্সিং outsourching থেকে অর্জিত আয়ের জন্য কি আয়কর (TAX) দিতে হবে ?

একটা কথা জেনে নেওয়া জরুরি যে ২০২৪ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত আয়ে কোন আয়কর বা সোর্স ট্যাক্স দিতে হবে না।


ফ্রিল্যান্সারদের সাধারণত দুই জায়গায় ট্যাক্স নিয়ে ঝামেলা হয়। এক ব্যাংকে টাকা আসলে ব্যাংক অনেক সময় ভুল করে ১০% সোর্স ট্যাক্স কেটে রাখে ও আরেকটা হচ্ছে আয়কর দেয়ার সময়। নিচের দুই সেকশনে দেখুন বিস্তারিত।

সোর্স ট্যাক্স বা উৎসে কর

অনেক ফ্রিল্যান্সারদের বলতে শোনা যায় যে তাদের ব্যাংকে টাকা আসলে ব্যাংক  ১০% সোর্স ট্যাক্স কেটে রেখেছে। কারণ তারা হয়ত জানে না যে আপনার আয়ের মাধ্যম কি বা  কি সার্ভিস বা পন্যের বিনিময়ে এ অর্থ এসেছে। এটা সাধারণত হয়ে থাকে ওয়্যার ট্রান্সফারে অর্থ আসলে। পেওনিয়ার বা মার্কেটপ্লেস থেকে লোকাল ব্যাংকে ট্রান্সফার দিলে এসব ঝামেলা হয় না। কারণ লোকাল ব্যাংক ট্রান্সফারে তারা ব্যাংকে ডলার না পাঠিয়ে তাদের লোকাল পার্টনারের মাধ্যমে টাকা পাঠায়। একারনে লোকাল ব্যাংক ট্রান্সফারে কোন ঝামেলা নেই, কোন কাগজপত্র কিছুই লাগে না।
এ সম্পর্কিত আইন
Income-tax Ordinance, 1984 তে নিবাসী কেউ বিদেশের কারো কোন কাজ করে দেয়ার বিনিময়ে যে অর্থ পাবে তার উপর ১০% ট্যাক্স কেটে রাখার বিধান ছিল।
কিন্তু অর্থ আইন, ২০১৮ তে এই আইন সংশোধন করে বলা হয়েছে নিবাসী কেউ বিদেশের কাউকে সফটওয়্যার ও সার্ভিসের বিনিময়ে প্রাপ্ত অর্থের উপর কোন কর কাটা হবে না।




আয়কর/ইনকাম ট্যাক্স

এইবার ইনকাম ট্যাক্স নিয়ে কথা হবে। মোটকথা হল ২০২৪ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ফ্রিল্যান্সি এর মাধ্যমে আয়কৃত অর্থে আয়কর মওকুফ। তবে টিন নিতে হবে ও প্রতিবছর রিটার্ন সাবমিট করতে হবে। ফ্রিল্যান্সার মানে Information Technology Enabled Services (ITES) সার্ভিস প্রোভাইডার। ITES এর মধ্যে কি কি আছে তাও বলা আছে আইনে। সেগুলো নিম্নরূপ।
  • Digital Content Development and Management
  • Animation (both 2D and 3D)
  • Geographic Information Services (GIS)
  • IT Support and Software Maintenance Services
  • Web Site Services
  • Business Process Outsourcing
  • Data entry
  • Data Processing
  • Call Centre
  • Graphics Design (digital service)
  • Search Engine Optimization
  • Web Listing
  • E-commerce and Online Shopping
  • document conversion, imaging and archiving

টিআইএন থাকলেই কি রিটার্ন দিতে হবে ? TIN থাকলেও কখন রিটার্ন দিতে হয় না নতুন নিয়ম জেনে নিন | পর্ব- ২

টিআইএন থাকলেই কি রিটার্ন দিতে হবে ? TIN থাকলেও কখন রিটার্ন দিতে হয় না নতুন নিয়ম জেনে নিন | পর্ব- ২

 গত করবর্ষের (২০১৪-১৫) জুলাই থেকে জুন মাসের মধ্যে আপনি যে আয় করেছেন, তা করমুক্ত আয়সীমার নিচেই রয়েছে। কিন্তু আপনার কর শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) আছে। চিন্তা নেই, আপনাকে বার্ষিক আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন জমা দিতে হবে না।গত করবর্ষ (২০১৪-১৫) থেকে টিআইএন থাকলে রিটার্ন জমার বাধ্যবাধকতা উঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। গত বছর বাজেট ঘোষণার সময় আয়কর অধ্যাদেশের রিটার্ন দাখিলসংক্রান্ত ৭৫ ধারা সংশোধন করা হয়েছে। এ সংশোধনের ফলে টিআইএন থাকলেও যে বছর করযোগ্য আয় হবে, সেই বছরই রিটার্ন জমা দিতে হবে।এ ছাড়া করদাতার বাসায় একটি ল্যান্ড টেলিফোন থাকলে, ১ হাজার ৬০০ বর্গফুটের বেশি আয়তনবিশিষ্ট বহুতল ভবন থাকলে এবং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নির্বাচনের প্রার্থী হলে আয়কর বিবরণী জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক ছিল। কিন্তু এ বাধ্যবাধকতাও উঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

টিআইএন (TIN) থাকলে অবশ্যই আয়কর রিটার্ন দাখিল করা বাধ্যতামূলক যাদের জন্যে | e-TIN Question | পর্ব-৩

টিআইএন (TIN) থাকলে অবশ্যই আয়কর রিটার্ন দাখিল করা বাধ্যতামূলক যাদের জন্যে | e-TIN Question | পর্ব-৩
 2nd- https://www.youtube.com/watch?v=NBL_dnzNwxQ 
1st- https://www.youtube.com/watch?v=jGabugF5ZsI

করদাতা শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) থাকলে ব্যাক্তি করদাতাকে সংশ্লিষ্ট আয় বছরের জন্য অবশ্যই রিটার্ন দাখিল করতে হবে অন্যথায় তাহার বিরুদ্ধে জরিমানা, ৫০ শতাংশ অতিরিক্ত সরলসুদ এবং বিলম্ব সুদ আরপযোগ্য হবে (আয়কর অধ্যাদেশের ১৯৮৪ এর ধারা-১২৪, ৭৩, ৭৩এ আরপযোগ্য)।

টিআইএন থাকলে আবশ্যিক রিটার্ন দাখিল করতে হবে যাদের মোট আয় করমুক্ত আয়ের সীমা অতিক্রম করে, আয় বছরের পূর্ববর্তী তিন বছরের যে কোন বছর করদাতার কর নির্ধারন হয়ে থাকে, করদাতা যদি কোন কোম্পানির শেয়ার হোল্ডার পরিচালক হন; কোন ফার্মের অংশীদার হন; সরকার অথবা সরকারের কোন কর্তৃপক্ষ, কর্পোরেশন, সত্তা বা ইউনিটের বা প্রচলিত কোন আইন, আদেশের বা দলিলের মাধ্যমে গঠিত কোন কর্তৃপক্ষের কর্মচারী হয়ে আয় বছরের যে কোন সময় ১৬,০০০/- (ষোল হাজার টাকা) বা তদুর্ধ পরিমাণ মুল বেতন পেয়ে থাকেন; কোন ব্যাবসায় বা পেশায় নির্বাহী বা ব্যাবস্থাপনা পদে বেতনভোগী কর্মকর্তা বা কর্মী হন মোটর গাড়ীর মালিক; মুল্য সংযোজন কর আইনের আওতায় নিবন্ধিত কোন ক্লাবের সদস্যপদে থাকা; কোন সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা এবং ইউনিয়ন পরিষদ হতে ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণ করে কোন ব্যাবসা বা পেশা পরিচালনাকারী; চিকিৎসক, দন্ত চিকিৎসক, আইনজীবী, চার্টার্ড একাউন্টেন্ট, আয়কর পেশাজীবী, কস্ট এন্ড ম্যানেজমেন্ট একাউন্টেন্ট, প্রকৌশলী, স্থপতি , সার্ভেয়ার, শিল্প বিষয়ক চেম্বার অথবা ব্যাবসায়িক সংঘ এর সদস্যপদ থাকলে ; কোন পৌরসভা, সিটি কর্পোরেশন এবং সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী হওয়া; কোন সরকারী, আধা সরকারী, সহায়ত্ব শাসিত সংস্থা বা কোন স্থানীয় সরকারের অধীন টেন্ডারে অংশগ্রহণকারী; কোন কোম্পানী অথবা কোন গ্রুপ অব কোম্পানীর পরিচালনা পর্ষদে চাকুরী করেন, ইত্যাদি (আয়কর অধ্যাদেশের ১৯৮৪ এর ধারা- ৭৫ অনুযায়ী)।

ডায়াবেটিসে হঠাৎ সুগার হাই অথবা লো হলে কি করবেন?

আমাদের শরীরে ইনসুলিন নামক এক ধরণের হরমোন রয়েছে যা শরীরে রক্তের শর্করা বা গ্লুকোজ সুগার (চিনির) পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। যখনি শরীরে ইনসুলিন ঠিক ভাবে উৎপন্ন হতে পারে না তখনি রক্তে শর্করা বা চিনির পরিমাণ ঠিক রাখা যায় না এবং ডায়াবেটিস শরীরে বাসা বাঁধে।ডায়াবেটিস রোগে দুই ধরণের অবস্থা দেখতে পাওয়া যায় যেটা হাইপার গ্লাইসেমিয়া এবং অন্যটা হাইপো গ্লাইসেমিয়া।
প্রথমে বলা যাক হাইপার গ্লাইসেমিয়া সম্পর্কে – এটা এমন এক অবস্থা যাতে শরীরে রক্তে সুগার বা শর্করার মাত্রা বেড়ে যায়। খুব সোজা ভাষায় বলা যেতে পারে যে, ডায়াবেটিক রোগীদের ঠিক এই সময়ে ইনসুলিন ব্যবহার করতে হয় অর্থাৎ যদি কারো রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে ১১ মি.লি মোল/ লিটার এর উপরে চলে যায় তখনি তাকে হাইপার গ্লাইসেমিয়া ধরা হয়।
হাইপার গ্লাইসেমিয়ার কারণ :
সাধারণত কোনো ডায়াবেটিক রোগী যদি অতিরিক্ত মিষ্টি জাতীয় খাবার যেমন : চিনি, মিষ্টি (সব ধরণের মিষ্টি), মিষ্টি ফল যেমন আম,কাঁঠাল,সফেদা ইত্যাদি পরিমাণের চেয়ে অতিরিক্ত খেয়ে ফেলেন তাহলে রক্তে চিনির পরিমাণ বেড়ে যায় এবং হাইপার গ্লাইসেমিয়া দেখা যায়।অথবা ডায়াবেটিক রোগীরা যদি শর্করা জাতীয় খাবার যেমন: ভাত, আলু, মিষ্টি আলু, কচুর মূল ইত্যাদি অতিরিক্ত খেয়ে ফেলেন তাহলেও এই অবস্থা দেখা দিতে পারে।
হাইপার গ্লাইসেমিয়ার লক্ষণ :
১.অনেক বেশি পানির পিপাসা এবং মনে হওয়া যে মুখের ভিতরটা শুকিয়ে যাওয়া।
২.বেশি বার মূত্র বিসর্জন। অর্থাৎ অনেক বেশি পেশাব হওয়া
৩.দুর্বলতা
৪.চোখে ঝাপসা দেখা
৫.বমি বমি ভাব
৬.শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া।
৭.অনেক সময় পেট ব্যাথাও হতে পারে।
হাইপার গ্লাইসেমিয়াতে করণীয় :
১.রক্তে গ্লুকোজ লেভেল কমানোর জন্য বেশি পরিমাণে পানি পান করতে হবে।
২.অনেক সময় দাড়চিনি খেলেও রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমে যায়।
হাইপার গ্লাইসেমিয়া যাতে না হয় তার জন্য করণীয় :
১.সব সময় রক্তের গ্লুকোজ লেভেল খেয়াল রাখতে হবে।প্রতিদিনই অন্তত একবার মেপে দেখতে হবে।
২.ডাক্তার এর দেয়া খাবার মেনু ঠিক ভাবে মানতে হবে অর্থাৎ যে খাবার যতটুকু পরিমাণে খেতে বলা হয়েছে ঠিক তত টুকুই খেতে হবে।
৩.কিছু না কিছু শারীরিক কাজ কর্ম বা ব্যায়াম করতে হবে। একেবারে শুয়ে বসে থাকা চলবে না।
৪.অবশ্যই ডাক্তার এর পরামর্শ মতো এবং সময় মতো ইনসুলিন নিতে হবে।
৫.কম শর্করা জাতীয় খাবার যেমন ভুট্টা, ডাল, বাদাম, খোসাসমেত ফল, কাঁচা আটার রুটি ইত্যাদি খেতে হবে।এছাড়াও অাঁশ জাতীয় খাবার যেমন- ডাল,বাদাম,বীচি,শুকনা ফল,জিরা,ধনে,মটরশুঁটি, খোসাসমেত ফল(আপেল,পেয়ারা) ইত্যাদি খেতে হবে।
এবার আসি হাইপো গ্লাইসেমিয়াতে
যেটাকে সাধারণ ভাষায় হাইপো বলে থাকেন অনেকে। যখন রক্তে গ্লুকোজ লেভেল ৩.৯ মি.লি. মোল/লিটার এর নিচে নেমে যায় তখনি সাধারণত হাইপো হয়।

হাইপো হবার লক্ষণ :
১.মাথা ঘোরানো এবং শরীর দুর্বল লাগা
২.ঘাম হওয়া
৩.প্রচন্ড ক্ষুধা লাগা
৪.অনেক সময় মাথা ব্যাথাও হতে পারে
৬.পেশী তে ব্যাথা হওয়া
৫.অজ্ঞান হয়ে যাওয়া।
বিশেষ দ্রষ্টব্য :অনেক সময় হাইপোর কারণে মৃত্যু ও হতে পারে।
হাইপো হওয়ার কারণ:
১.সাধারণত অতিরিক্ত ইনসুলিন গ্রহণ করলে রক্তে গ্লুকোজ লেভেল কমে যেতে পারে।
২.অতিরিক্ত ব্যায়াম এর ফলে রক্তে গ্লুকোজ লেভেল কমে যেতে পারে
৩.প্রয়োজনের তুলনায় কম খেলে বা কোনো বেলার খাবার বাদ দিলে
৪.অতিরিক্ত ঔষধ গ্রহণের ফলেও এমনটা হতে পারে।
হাইপো হলে করণীয় :
১.হাইপো হবার সাথে সাথেই ৩-৪ চামচ চিনি পানিতে গুলিয়ে খেয়ে ফেলতে হবে।
অথবা
২. তিন থেকে চারটি গ্লুকোজ ট্যাবলেট খেয়ে ফেলতে হবে
অথবা
৩. আধা কাপ মিষ্টি ফলের জুস বা আধা কাপ কোমল পানীয়( কোক, ফান্টা, সেভেনআপ)
অথবা
৪. চার থেকে ছয় পিস ক্যান্ডি
অথবা
৫.উচ্চ মানের শর্করা জাতীয় খাবার যেমন: ভাত, আলু, মিষ্টি ইত্যাদি খেতে হবে।
হাইপো যাতে না হয় তার জন্য করণীয়:
১.ডায়াবেটিক রোগী হলে বেশি ক্ষণ না খেয়ে থাকা যাবে না বা কোনো বেলার খাবার বাদ দেয়া যাবে না।
২.অতিরিক্ত ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রম করা যাবে না।
৩.গ্লুকোজ লেভেল বার বার মেপে দেখতে হবে।
৪.অতিরিক্ত ইনসুলিন বা খাবার ঔষধ খাওয়া যাবে না।
৫.দুশ্চিন্তা বা ক্লান্তি অবসাদ যেনো না আসে সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে।
লেখক-
আয়শা মারিয়া
খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান।

GP 10GB Tk100 for 30 Day – GP Big Data Pack ([email protected])

GP 10GB Tk100 for 30 Day – GP Big Data Pack ([email protected])! Grameenphone gives the best opportunity for the special GP sim card customer if you have a Grameenphone sim card and the sim card you do not use any internet package then you got the 10GB offer.

GP [email protected] offer already started the running month, so you can buy this offer if you are eligible for this offer.
Don’t worry we will provide the GP 10GB Tk100 activation code with the full process, just following our article and get 10GB internet at Price Taka 100 with 1-month validity.
Normally Grameenphone internet speed is the premium quality, that’s way GP internet price is always high.
GP 10GB Tk100 for 30 Day - GP Big Data Pack (GP10GB@Tk100)
Grameenphone 10GB new internet offer available on our website, dear visitor we always try to give the best offer for you, Your happiness is our pleasure.

PriceOfferValidityActive
Tk.10010GB30 DAYS*121*5339#

GP 10GB Tk100 for 30 Day – GP Big Data Pack ([email protected]) Details:

What is the Activation Code GP 10GB Tk100?

gp_logo_offerbuildGP Tk.100 for 10GB internet activation code is *121*5339#
  • GP 10GB offer price Taka 100
  • This the special customer offer.
  • Grameenphone 10GB internet offer validity is 30 days.
  • To activate 10GB offer just dial the code *121*5339#
  • If you received SMS from the Grameenphone as the name “GP Offer” then get this offer.
  • To check remaining internet balance simply dial *121*1*2#
  • This internet package can use 3G, 4G, network, you can also use the 2G network.
  • Price Tk.100, no need extra VAT, SD, all VAT including the price.
  • Limited time offer.
  • A customer can buy a 10GB data offer only once time.

e-TIN Registration Tutorial 2020 | ঘরে বসে ফ্রিতে e-TIN সার্টিফিকেট পাওয়ার উপায় - ৫ মিনিটে ই-টিন

e-TIN Registration Tutorial 2020 | ঘরে বসে ফ্রিতে e-TIN সার্টিফিকেট পাওয়ার উপায় - ৫ মিনিটে ই-টিন

https://www.incometax.gov.bd/TINHome 

ওয়েব সাইট ওপেন হলে "রেজিস্ট্রার" বাটনে ক্লিক করুন। তারপর আপনার পছন্দ মত ইউসার আইডি, পাসওয়ার্ড, নিরাপত্তা প্রশ্ন, ইমেইল ঠিকানা এবং মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিচের রেজিস্ট্রার বাটনে ক্লিক করুন। তারপর আপনার দেওয়া মোবাইল নম্বরে একটি কোড সহ এনবিআর এর একটি মেসেজ চলে আসবে। ধাপ-২ এবার ঐ ওয়েব সাইটের ই- টিন অ্যাক্টিভেশন নামক পেজে আপনার মোবাইলে প্রাপ্ত কোডটি টাইপ করে Activate বাটনে ক্লিক করুন।

 তারপর আপনি একটি লেখা দেখতে পাবেন For TIN registration/re-registration, click here এই অংশে ক্লিক করুন। এখানে আপনার সকল জরুরী তথ্য দিয়ে নেক্সট বাটনে এ ক্লিক করুন। করদাতার ধরন অংশে আপনি ব্যক্তি/ প্রবাসী বা কোম্পানি- যা আপনার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য তা নির্বাচন করুন। যদি আপনি পূর্বে টিন সার্টিফিকেট না করে থাকেন মানে যদি নতুন হন, তবে New registration নির্বাচন করুন, আর যাদি আপনার আগে টিন সার্টিফিকেট ছিল এমন হয় তবে Re-registration অপশনে ক্লিক করতে হবে। তারপর পুরনো টিন নম্বর লিখে পরের পাতায় যেতে হবে আপনাকে। এবার আপনার আয় সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য যেমনঃ পেশা, আয়ের উৎস, স্থান দিয়ে পরবর্তী পাতায় যেতে হবে। এরপর আপনার ব্যক্তিগত সব তথ্য যেমনঃ নাম, ঠিকানা, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, ভ্যাট নিবন্ধন নম্বর (যদি থাকে) ইত্যাদি প্রযোজ্য বিষয় গুলো সঠিক ভাবে দিয়ে কনফার্ম করুন। কিছুক্ষণের মধ্যেই আপনার ই- টিন প্রস্তুত হয়ে যাবে। আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর দেওয়ার সাথে সাথে ছবি সহ সব তথ্য যাচাই হয়ে যায় স্বয়ংক্রিয় ভাবে। আপনার ই-টিন সার্টিফিকেট তৎক্ষণাৎ প্রিন্ট করে নিতে পারবেন। অথবা পিডিএফ আকারে সংরক্ষণ করেও রাখতে পারবেন, পরে যেকোন সময় প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।

 কাজ তো শেষ এবার বলুন তো Video কেমন লেগেছে। অবশ্যই জানাবেন। আপনার comments অপেক্ষায় রইলাম। ভালো থাকবেন।

GP 5GB Internet offer only 299 Taka (Validity 30 days) | Grameenphone

GP 5GB Internet offer only 299 Taka (Validity 30 days) | Grameenphone

GP 5GB Internet Offer: Today I will share with you the GP 5GB Internet Offer. This is an excellent cheap internet offer. You can get 5GB internet from here with only 229 Taka. Every GP prepaid and postpaid subscriber can avail this excellent internet offer with 299 Taka.

Grameenphone
is one of the most popular mobile operators in Bangladesh. They are offering
excellent internet for every customer at low cost. If you want to be one of them
then you should switch to GP SIM. You can use the best Internet offers.
Table of Contents

GP 5GB Internet Offer:

Grameenphone customers can buy 5GB internet package for 30 days with just 299 Taka. You need to use 1 GB internet out of 5 GB internet in 4G sim. With this internet offer you will be able to quickly download and browse. Through other Internet packs, this pack will provide the fastest network service that can have speeds – 5 to 12 Mbps.

If you need this internet offer you can buy it from here for 299 
Taka. This pack is most popular in Bangladesh. Because many people can 
buy for longer periods. To avail this offer, dial * 121 * 3458 #. This Internet pack expires 30 days.

GP 5GB offer – Terms & Condition:

  • To active this offer, dial * 121 * 3458 #.
  • The internet is 30 days.
  • This Internet offer will continue until further notice.
  • The offer applies to all GP customers.
  • The internet offer is priced at Rs 299.
  • This package has 5 GB internet.
  • All customers can buy multiple times.
  • This offer does not apply to Skitto customers.
  • You can enjoy the offer on 3G and 4G networks.
You can make a nice comment to us by telling you how the GP 5GB Internet offer looks to you. I hope you like this offer. We have offered excellent internet of GPs here. You can see those internet offers. Thank you for coming here.

GP Bondho SIM Offer 2020 – জিপি বন্ধ সিমে ৫ জিবি ৪৩ টাকায়, ৭ দিন

GP Bondho SIM Offer 2020 – জিপি বন্ধ সিমে ৫ জিবি ৪৩ টাকায়, ৭ দিন

 

GP Bondho SIM Offer 2020 New update package. Grameenphone / GP bondho sim offer will be available on 1GB internet only 9 Taka. All GP customers will be able to use this offer when they restart their closed SIM. This offer is applicable for closed GP SIM.
You will be able to purchase this pack if your SIM is under closed connection. All the information required for this offer is discussed below. Buy all pack and enjoy with Grameenphone SIM.
Details Total Price Activation Validity
5GB (Internet) Tk. 43 Recharge 43 Tk 30 days
3GB+100 Min + 48 P/S Tk. 101 Recharge 101 Tk 30 days
48 Minute Tk. 28 Recharge 28 Tk 30 days

GP Bondho SIM Offer 2020:


To know if this offer is applicable to customers, dial *121*5300# or you had not connected with Grameenphone Network since 03 November 2019.
gp-bondho-sim-offer-2019

GP 5GB 43 Taka offer :

After a lot of waiting, GP has published bondho SIM offer!  This is the lowest cost Internet offer among all Internet packages. GP customers will get great internet offers and great minute offers as the bondho SIM is restarted. You can get 5GB internet with only 43 Taka. To avail this offer, Recharge 43 Taka.
Terms :
  • This offer is applicable only for customers who have not activated Grameenphone connection since 03 November 2019.
  • To active this offer Press, recharge 43 Taka.
  • You can also take the offer from the MyGP App.
  • GP prepaid Bondho SIM customers will be able to avail this offer.
  • 5 GB is only 43 Taka.
  • The offer expires 07 days.
  • The offer will continue until further notice.
  • But does not apply to Skitto customers.
  • You can purchase this offer 1 time.

GP Lowest Call Rate :

gp low call rate
Hello Friend, If you return to GP Bondho SIM Offer you will enjoy the lowest Call Rate. This offer has already been enabled for the friend GP sim. Applies to all Friends SIM. And you can enjoy the internet offer as well.
If you want to get the lowest collateral, you need to recharge 101 Tk. But you can talk at the lowest call rate at 48 paise a second with 3GB Internet + 100 Minute. Minute validity is 30 days. So you can recharge for the lowest call rate and can choose an offer from here. You can use it in any-operator.
3GB + 100 Minute & 48 Paisa second only 101 Taka:
  • GP has released an excellent offer of 3GB internet, 100 minute offer, 48 paise second and 101 Taka for 30 days period.
  • To avail this offer, you need to recharge 101 Taka.
  • All these offers expire in 30 days.
  • Any local number can be accessed on the local network (GP-GP, GP-other operators).
  • All customers will be able to enjoy the special call rate during the closed limit offer.
  • This special call rate does not apply to purchased minutes, bonus minutes, bonus amounts and emergency balances. The first purchased minutes, the bonus minutes, the bonus amounts and the emergency balance will be used then the special collateral will be launched.
  • You will be able to purchase the offer at different times during the campaign. Maximum validity will apply to multiple recharges.
  • After the expiry of the special call rate, the customer will return to the previous offer / package.
  • Dial * 121 * 1 * 2 # for the offer period
  • To cancel this pack, dial * 121 * 10003 * 13 #
  • The offer is valid for a fixed period.

GP 48 Minute 28 Taka offer:

  • To get this offer, Recharges 28 Taka.
  • Minutes can be used for 30 days and 24 hours a day.
  • Minutes allowed can be used by any local operator.
  • Customers will get 28 Taka for 48 minutes (GP – any local operator).
  • If a customer has remaining minutes at the expiration date, they will be redeemed. However, if the customer re-purchases the offer before the expiration, then the remaining minutes will be added and more time will be paid.
  • To find the minute balance, dial *121*1*2#.
  • 10 second pulse applies to voice calls.

GP Off SIM Other Offers :

GP 500 MB 5 Tk :

Super Internet offer in the GP! 500 MB internet at just 5 Taka. GP take this offer for, dial *121*3210# or *121*3809#. If you use this offer you will not be able to get it here. This offer enjoyed once time. Internet time is 3 days.

GP 1GB 9Tk Offer :

Get more internet low cost at GP. Now, 1GB of the internet at just 9 Taka. The data pack is valid for 28 days. To use the offer dial *121*5001#, *121*5005# or *121*5099#. GP is one of the popular internet offers.

GB 1GB 17 Taka :

GP 1GB internet at 17 Tk offer. Currently, this offer is more enjoyable by customers. Dial *5020*2100# and * 5020*2101# or *5020*2099# to avail this offer. Expiry 7 days.

GP 25Tk 1GB Offer :

GP has released 1GB excellent internet offer with 25 Taka. This is a great internet offer worth 25 Taka. You can pick up this offer at the lowest cost. Here is an Amazing Data Offer for you. To get this offer Press *121*5192#. Internet validity is 7 Days. However, this offer is only available to Super customers.

GP 2GB 54 Tk :

GP has published a new internet offer on their official website. Now you get 2 GB internet with just 54 Taka in the GP. Published this offer for customer service. Customers can take mobile internet services at a lower price. To avail the offer, dial *121*3242#. Internet validity 03 days (72 hours) To check internet volume dial *121*1*4#.
gp-bondho-sim-offer

GP 1GB  89 Taka :

Now GP 1GB internet at only 89 Taka. One Weekly Internet Package. If you want to enjoy this offer, you can use it. However, the current offer for all GP customers is applicable. To activate the offer dial *121*3056#. Data pack expires 7 days.

GP 3GB 108 TK :

GP 3 GB internet package only 108 Take. The low-cost internet package. 3GB pack is applicable for prepaid and postpaid customers. Dial *121*3344# to avail this offer. Expiry 7 days.

GP 6 GB 148Tk Offer :

You can now get GP 6GB internet for only 148 Taka, which expires 7 days. If you want to buy the offer, you can buy it from here. It will cost Tk 148 to get this offer. 6 GB of internet. You to get this offer dial *121*3262# or buy a recharge 148 Taka. This data pack has been published for GP subscribers. To cancel your internet pack, dial *121*3041#.

8GB Data offer:

Wow! GP has released excellent 8GB internet Packages. Each GP customer will be able to purchase 8GB internet offer at a lower price. 8GB Internet includes 6GB Regular Pack and 2GB Internet 4G. Grameenphone has published this Internet offer on their official website. To avail this offer, dial * 121 * 3262 #. Internet package expires 07 days.

Grameenphone Company Network Performance :

GP is the most popular mobile network company in Bangladesh. Currently, there is the most powerful and 4G coverage among mobile network operators. They have provided 3G network services throughout Bangladesh and have implemented 4G technology in the divisional cities. It will provide 4G network services in every district and village in a hurry.
Grameenphone offer
Although GP internet packages are currently expensive, they chose to provide easy and affordable packages. Besides, Facebook, Wikipedia and some popular websites provide free browsing services. In this, customers can easily enjoy offers.

What is the supply of GP network?

  • GP ahead for providing powerful network services. About 60% of the people in Bangladesh are receiving GP services.
  • Bangladesh has the largest area of ​​GP network service in Bangladesh. GP first as a mobile network service provider company. Together they provide network services in 64 districts and 789 Upazilas.
  • Giving 3G / 4G network services across the country GP is the most popular form, other operators.
  • Many internet offers/minute offers/GP SMS offer/Bondho SIM offer packages can be availed at the lowest cost. Internet speed is very fast.
  • GP provides regular or monthly offers for customers. Customers benefit.

GP New Internet Offer 2020 – GP 1GB 7Tk Offer (7 days)

GP New Internet offer 2020: GP Surprise internet offer for thire users. GP provide excellent internet offer 2020! GP 1GB 7TK offer is the best choice for gp users.
This internet pack is the cheapest price among all Grameenphone offers. If you would like to get GP super internet pack then you can visit our website www.lol-bd2.com. I’ll tell you how to buy a 1GB data pack easily.

GP has
released a great internet pack for all their customers on their official
website. This offer make Grameenphone more attractive and important to all
customers. This internet offer will be available on their official website and
also here.exciting offer GP new internet offer 2020.
Table of Contents

How to buy this Offer :

You can buy this offer with 2 methods. One is dialing with a code and another method is MyGP app. This two methods discuss here.
Buy This Offer with Code :
If you want to buy this code just dial a code. Than you purchase this gp pack. So, dail *121*5242# to buy 1 gb internet 7 tk for 7 days.
gp 1gb 7 taka offer
or Buy This Pack with MyGP App :
The GP 1GB internet pack should be purchased for just 7 taka each. If you want to purchase Grameenphone 1GB data pack then you need to download “MyGP” Apps. Download and install these Apps, or you will be able to enjoy this offer only if you have downloaded it before.Below is how you make a purchase –
First you enter “MyGP” apps. Then you will find a feature front of you and you’ll see “My Offers” on menubar. You click on “My Offers”. After this you will get GP 1GB 7 Tk Offer. Get out there and enjoy the offer. This great internet pack expire date 07 days.

GP New Internet offer 2020:

  • To activate this offer go to “MyGP” Apps.
  • GP 1GB 7 Taka wonderful offer.
  • Internet offer expires 07 days.
  • The offer will remain active until further notice.
  • This data offer is applicable to specific customers.
  • Cannot purchase multiple.
  • You must check MyGP’s Offer to receive the offer.
  • During the campaign, customers will be able to purchase the data pack only once.

Friends, you should quickly share this offer with your friends. So that all your classmates can buy this GP internet offer of 1GB data 7 Taka. I want your help to buy a awesome internet offers. Other hands you find more offer on our website. You can safely take you favorite data pack from our website.

GP 4G Internet offer 2020 (30 days) | GP 4GB Data Pack

GP 4G internet offer 2020: GP has brought excellent internet offers for 4G customers. All GP customers will be able to avail 4G offers from here. From this website you can buy GP 4G data pack at a cheap price. Here are the Internet packages that will be offered here.

GP is
providing 4G network services all over Bangladesh. They have already launched
4G networks in all districts and upazilas. They have brought excellent internet
offers for 4G customers. You can purchase GP Internet offers from here for a
cheap price and use it.
Table of Contents

GP 4G Internet Offer 2020:

Today I will discuss with you the details of GP 4G Internet Offer 2020. I have created an excellent internet table here for the GP 4G SIM, which you can buy from any of the packages you choose. Below is a table of GP excellent internet packs –
Data Packs  Data Packs Activation Code Validity
6 GB Tk. 118 *121*3434# 07 days
20 GB Tk. 499 *121*3435# 30 days
60 GB Tk. 999 *121*3436# 30 days
100 GB Tk. 1,499 *121*3437# 30 days
200 GB Tk. 1,999 *121*3438# 30 days

Terms & Condition:

  • All GP subscribers can dial up the active code and get internet offers.
  • The Internet packages offered here are applicable only for 3G SIMs.
  • To verify the 4G SIM dial * 121 * 3232 #
  • Applies to all GP prepaid and postpaid customers.
  • To internet balance check dial * 121 * 1 * 4 #
  • Not all Internet package conditions apply.
  • You can buy as many times as you like.
  • Unused internet will be added if you re-purchase the same internet offer during the period.

Grameenphone is the most popular and powerful network service company
 in Bangladesh. About 74 million customers are enjoying their network 
service. Their network has reached all the places in Bangladesh. You 
will enjoy their network service.

GP 1GB 12Tk Offer (GP Supper Internet Offer 2020) – 3 Days

Hello friends. Welcome to our website. Today I will discuss GP 1GB 12Tk Offer. GP prepaid customers will be able to use the excellent 1GB Internet Offer 2020. They are publishing more internets for their customers at lower prices. GP has published 1GB internet for 3 days for special customers for just 12 Taka. If you are interested in using the offer, you can use it.
Check - GP 1GB offer 
You can use it anytime within 24 hours. There are other internet offers on our website. You can easily buy offers.
This offer is not public, so not all Grameenphone users can avail this offer. Only selected customers from Grameenphone will get 1GB internet with 12 Tk.
Table of Contents

GP 1GB 12Tk offer (Active offer dial USSD Code) and 3 days

If you look at the 1GB offer as nice, then you won’t miss it. Get GP 1GB Internet Offer Now –

Grameenphone is the first network service organization in Bangladesh.
 Today GP is the most powerful network service company in Bangladesh.

Terms – Condition:

  • GP 1GB 12Tk offer Activation Code is *123*5174#
  • Data Volume – 1GB Pack
  • Internet Validity is 03 days (72 Hours).
  • 1GB 12Tk in GP SIM offer.
  • Customers can buy this offer 5 times.
  • Special User can allow 12tk 1GB offer.
  • How to check internet balance dial *121*1* 2#
  • This offer is limited times.
  • This offer will work on 2G, 3G, 4G SIM.
  • Only you can buy by dialing USSD Code.
What is Grameenphone job and how does it provide services? Providing network services to customers is their only task. Collecting customer complaints and trying to resolve the problem. GP solves the advantages and disadvantages of customers. Currently, their subscriber base is about 70 million.

প্রবাসী সঞ্চয়পত্রে ১ লাখ টাকা রাখলে ৬০,০০০ টাকা শুধু মুনাফা

প্রবাসী সঞ্চয়পত্রে ১ লাখ টাকা রাখলে ৬০,০০০ টাকা শুধু মুনাফা

বন্ডের মূল্যমানঃ
টাকা ২৫,০০০/-; টাকা ৫০,০০০/-; টাকা ১,০০,০০০/-; টাকা ২,০০,০০০/-; টাকা ৫,০০,০০০/-; টাকা ১০,০০,০০০/; এবং ৫০,০০,০০০/-।

মুনাফাঃ
  • মেয়াদান্তে মুনাফা ১২%। বন্ড ধারক ১২% হারে প্রত্যেক বছরে ষান্মাসিকভিত্তিতে মুনাফা উত্তোলন করতে পারবেন। তবে ষান্মাসিকভিত্তিতে মুনাফা উত্তোলিত না হলে, মেয়াদপূর্তিতে মুল অংকের সাথে ষান্মাসিকভিত্তিতে ১২% চক্রবৃদ্ধি হারে উক্ত মুনাফা প্রদেয় হবে।

মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধাঃ
  • একজন ওয়েজ আর্নার প্রাথমিকভাবে ন্যূনতম টাকা ২৫,০০০/- বা ততোধিক মূল্যের বন্ড ক্রয় করলে নির্ধারিত হারে মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধা পাবে। তবে উক্ত ক্রয় সংশ্লিষ্ট ওয়েজ আর্নারের মৃত্যুর পূর্বেই সংঘটিত হতে হবে।
  • ওয়েজ আর্নারের মৃত্যুর পূর্বেই যদি বন্ডের মেয়াদপূর্ণ হয়, তা হলে মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধা প্রাপ্য হবে না;
  • বন্ড ধারকের মৃত্যুর ৬-মাসের মধ্যে মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধা দাবী করতে হবে। এর পর মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধার বিপরীতে কোন দাবী গ্রহণযোগ্য হবে না;
  • মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধার পরিমাণ টাকা ৫,০০,০০০/- এর অধিক হবে না;
  • ওয়েজ আর্নারের বয়স ৫৫-বছরের অধিক হলে মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধা প্রাপ্য হবে না।

সি.আই.পি সুবিধাঃ
  • এ বন্ডে টাকা ৮০ (আশি) মিলিয়ন বা ততোধিক বিনিয়োগকারী সি.আই.পি সুবিধা প্রাপ্য হবেন; তবে নগদায়নের কারণে বিনিয়োগ টাকা ৮০ (আশি) মিলিয়ন-এর নীচে নেমে যায় এবং প্রয়োজনীয় বিনিয়োগের মাধ্যমে ৩-মাসের মধ্যে তিনি উক্ত সীমা অর্জন করতে ব্যর্থ হন, তা হলে তিনি সি.আই.পি সুবিধা হতে বঞ্চিত হবেন।

কারা ক্রয় করতে পারেঃ
  • বিদেশে কর্মরত বাংলাদেশী ‘ওয়েজ আর্নার[1]' নিজ নামে অথবা; আবেদনপত্রে উল্লিখিত তার মনোনীত ব্যক্তির নামে অথবা প্রেরিত বৈদেশিক মুদ্রার বেনিফিসিয়ারী[2]-এর নামে এ বন্ড ক্রয় করা যায়;
  • বিদেশে লিয়েনে কর্মরত বাংলাদেশী সরকারী, সংবিধিবদ্ধ সংস্থা, স্বায়ত্বশাসিত ও আধা স্বায়ত্বশাসিত সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ;
  • বিদেশে বাংলাদেশী দূতাবাসে কর্মরত বাংলাদেশ সরকারের কর্মকর্তা ও কর্মচারী, যারা বৈদেশিক মুদ্রায় বেতন-ভাতাদি পেয়ে থাকেন, তারা এ বন্ড ক্রয় করতে পারবেন।


কোথায় পাওয়া যাবেঃ
  • বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক তফসিলী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়সহ ঐ সকল শাখা, যারা ওয়েজ আর্নারদের বৈদেশিক মুদ্রা হিসাব পরিচালনা করে থাকেন;
  • বিদেশস্থ বাংলাদেশী ব্যাংকসমূহ ও তাদের প্রতিনিধিত্বকারী ব্যাংকসমূহ;

ক্রয় পদ্ধতিঃ
  • বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক তফসিলী ব্যাংকের অথরাইজড ডিলার (এ.ডি) শাখাসমূহে এবং বাংলাদেশী কোন ব্যাংকের বিদেশস্থ শাখা অথবা তাদের আওতাধীন বিদেশে কার্যরত এক্সচেঞ্জ কোম্পানীসমূহে বন্ড ক্রয়ের আবেদনপত্র ডি.বি-১ ফরম পুরণ ও স্বাক্ষর করে বন্ড ক্রয়ের আবেদন করা যায়।
  • ওয়েজ আর্নারের আবেদনের সূত্রে অনুমতি প্রাপ্ত হয়ে, ব্যাংক ওয়েজ আর্নার কর্তৃক পরিচালিত বৈদেশিক মুদ্রা হিসাবে জমাকৃত অর্থ বিকলন করে বন্ড ইস্যু করতে পারে;
  • কোন বেনিফিসিয়ারী ওয়েজ আর্নারের নিকট হতে প্রাপ্ত রেমিট্যান্সের বিপরীতে দালিলিক প্রমানাদি উপস্থাপন সাপেক্ষে বন্ড ক্রয় করতে পারেন;

মূল্য পরিশোধ পদ্ধতিঃ
  • নগদ বৈদেশিক মুদ্রায় অথবা রেমিট্যান্স হিসেবে প্রাপ্ত বৈদেশিক মুদ্রা হতে রুপান্তরিত বাংলাদেশী টাকায়;
  • ওয়েজ আর্নার কর্তৃক বিদেশ হতে প্রেরিত এবং তাঁর এফ.সি একাউন্টে জমাকৃত অর্থ দ্বারা অথবা;
  • বৈদেশিক মুদ্রায় চেক, ড্রাফট বা প্রেরিত বৈদেশিক মুদ্রার বিপরীতে টাকা ড্রাফট-এর মাধ্যমে; 

বন্ড নগদায়ন পদ্ধতিঃ
  • এ বন্ডের ইস্যু অফিস[3]-ই হবে এর প্রদানকারী অফিস।
  • বিদেশেস্থ ইস্যু অফিস থেকে বন্ড ক্রয় করা হলে সেখান থেকে নগদায়ন করা যায় না।
  • বিদেশ থেকে বন্ড ক্রয়ের ক্ষেত্রে ক্রেতাকে আবেদনপত্রে বাংলাদেশে প্রদানকারী অফিসের নাম উল্লেখ করতে হয়।

নমিনী সংক্রান্তঃ
  • বন্ড ধারকের মৃত্যু হলে নমিনী বন্ডের মূল্য, সুদ এবং মৃত্যুঝুঁকি সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে;
  • বেনিফিসিয়ারী কর্তৃক ক্রয়কৃত বন্ডে একই পদ্ধতিতে নমিনী নিয়োগ করা যাবে;
  • প্রতি সনদের জন্য একজনের অধিক নমিনী প্রদান করা যাবে না;
  • বন্ড ধারকের মৃত্যুর পূর্বে নমিনীর মৃত্যু হলে, নমিনীর কার্যকারিতা থাকবে না;
  • নমিনী বাতিল বা পরিবর্তন করা যাবে;
  • বন্ড ধারকের মৃত্যুর পূর্বেই যদি নমিনীর মৃত্যু ঘটে, তবে মৃত বন্ড ধারকের উত্তোরাধিকারীগণ বন্ডের মেয়াদপূর্তিতে মূল্য ও মুনাফা প্রাপ্য হবেন;
  • উত্তোরাধিকারীগণ শুধুমাত্র মেয়াদপূর্তিতে মূল্য ও মুনাফা গ্রহণ করতে পারবেন;


অন্যান্য বৈশিষ্টসমূহঃ
  • এ বন্ডের আসল অংক স্বয়ংক্রিয়ভাবে পুনঃবিনিয়োগযোগ্য;
  • ৪০% থেকে ৫০% পর্যন্ত  মৃত্যু-ঝুঁকির সুবিধা রয়েছে;
  • ষান্মাসিকভিত্তিতে মুনাফা প্রদেয়;
  • বন্ডের বিপরীতে বাংলাদেশ থেকে ঋণ গ্রহণের সুবিধা রয়েছে;
  • হারিয়ে গেলে, পুড়ে গেলে বা নষ্ট হলে ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যুর সুযোগ রয়েছে।
  • আট কোটি টাকা বা তদুর্ধ্ব বাংলাদেশি মুদ্রা বিনিয়োগকারীর জন্য সি. আই.পি (C.I.P) সুবিধা রয়েছে;
  • এফসি একাউন্ট থাকার কোন বাধ্যবাধকতা নেই।
  • এ বন্ডে বিনিয়োগের কোন ঊধ্বসীমা নেই।
  • এ বন্ডে বিনিয়োগকৃত মূল অংক বৈদেশিক মুদ্রায় বিদেশে প্রত্যাবাসিত করা যাবে;
  • বন্ডের বিপরীতে প্রাপ্র মূল অংক, মুনাফা এবং মৃত্যু ঝুঁকি সুবিধা ইত্যাদি বাংলাদেশে এবং কেবলমাত্র বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রদেয়;
  • ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড-এ বিনিয়োগকৃত এবং অর্জিত মুনাফা আয়করমুক্ত;
  •  বন্ডের একটি এককের ক্ষেত্রে একজনের বেশী ধারক ও নমিনীর মনোনয়ন দেয়া যাবে না;
  • অসুস্থতাজনিত কারনে বন্ড ধারক স্বাক্ষর করতে অপারগ হলে এবং একজন গেজেটেড  অফিসার কর্তৃক তার বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলির  ছাপ প্রত্যয়ন করা হলে প্রদানকারী অফিসার কর্তৃক সরেজমিন যাচাইয়ান্তে , বন্ড উপস্থাপনকারীর পরিচয় ও উপস্থাপিত বন্ডের সঠিকতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে বন্ড ধারকের হাতে ছাপ গ্রহন করে মেয়াদপূর্তি মূল্য অথবা সুদ পরিশোধ করবে।
  • বন্ডের ক্রেতা শরিরীকভাবে পঙ্গু, স্বাক্ষর প্রদানে সম্পূর্ণ অক্ষম হলে এবং এর পক্ষে মেডিক্যাল সার্টিফিকেট প্রদান করা হলে প্রদানকারী অফিসার কর্তৃক যাচাইয়ান্তে,  বন্ড উপস্থাপনকারীর পরিচয় ও উপস্থাপিত বন্ডের সঠিকতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে উক্ত বন্ডের মেয়াদপূর্তি মূল্য অথবা সুদ নমিনী অথবা উত্তরাধিকারীকে পরিশোধ করবে।


-০-
 

[1]ওয়েজ আর্নার বলতে একজন বাংলাদেশী নাগরিক, যিনি লাভজনকভাবে বিদেশে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে নিয়োজিত কিন্তু কোন সরকার বা সরকারী সংবিধিবদ্ধ সংস্থা, স্বায়ত্বশাসিত বা আধা-স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা হতে বেতন-ভাতাদি প্রাপ্ত হয় না। তাছাড়া যিনি আদতে বাংলাদেশী নাগরিক কিন্তু যে কোন কারণেই হোক, বিদেশী নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন।

[2] বেনিফিসিয়ারী বলতে একজন বাংলাদেশীকে বুঝাবে, যিনি বিদেশে কর্মরত ওয়েজ আর্নারের নিকট হতে প্রেরিত বৈদেশিক মুদ্রা প্রাপ্ত হন এবং যিনি ওয়েজ আর্নার বিনিময় হার প্রাপ্তির অধিকার লাভ করেন।
[3] ইস্যু অফিস বলতে-বাংলাদেশের তফসিলী বাংকের প্রধান কার্যালয়সহ ঐ সকল শাখা, যারা ওয়েজ আর্নারদের বৈদেশিক মুদ্রা হিসাব পরিচালনা করে থাকে;বিদেশস্থ বাংলাদেশী ব্যাংকসমূহ ও তাদের প্রতিনিধিত্বকারী ব্যাংকসমূহ এবং বাংলাদেশী কোন ব্যাংকের আওতাধীন বিদেশে কার্যরত এক্সচেঞ্জ কোম্পানীসমূহ।

Total Pageviews