Zakia Bari Momo hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic BD Actress Model

Zakia Bari Momo hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic BD Actress Model


Full name: Zakia Bari Momo
Birth date:
August 14, 1984
Birth place:
Brahmanbaria, Bangladesh
Education:
Jahangirnagar University
Occupation:
Actress, Model
Years active: 
2006-present
Spouse (s): 
Ajaj Monna
Religion:
Islam
Zodiac sign:
Capricorn
Zakia Bari Momo is a Bangladeshi model and actress who best known around the country as Lux superstar. After winning the Lux Chanel I beauty pageant in 2006, she comes to the limelight and got a chance to act in the Daruchini Dip. In the debut movie, she gets National Film Award that was the remarkable incident in her career. Now, she also the popular face on the small screen.

Zakia Bari Momo Early Life:

Zakia Bari Momo was born on August 14, 1984, in Brahmanbaria, Bangladesh. She passed early life in the home district. At first, Momo dreamed of being a pilot, then an architect, but her early dream halted by media related passion, especially in dancing. She took part in Notun Kuri in 1995, the largest child cultural program in Bangladesh that was aired by Bangladesh Television. Momo won the competition, but she gets countrywide familiarity when she won the Lux Chanel I Award. She becomes first class first in Honors and Masters in Drama and Dramatics from Jahangirnagar University.

Zakia Bari Momo Career:

Zakia Bari Momo started her career in the silver screen after winning the Lux Chanel I beauty pageant with the movie Daruchini Dip directed by Toukir Ahmed, story by Humayun Ahmed. She showed magnificent performance in the movie with co-actor Riaz and finally got National Award as the best female actress. After a long break, from her first movie, she acted in the second movie Prem Korbo Tomar Sathe in 2014. Flowing this year, she acted in another blockbuster movie Chuye Dile Mon with co-actor Arefin Shuvo. Momo already has won the heart of the audience by her terrific acting, she is one of the best dramatic actresses in the country.

Zakia Bari Momo Personal Life:

Zakia Bari Momo married to dramatist Ajaj Monna and they have a son named Udvash.

Zakia Bari Momo Height, Weight and Body Measurement:

  • Height: 5 feet 5 inches
  • Weight: 53kg
  • Bra size: 34 B
  • Waist size: 25 inches
  • Hip size: 36 inches
  • Body measurement: 34-25-36 inches
  • Hair color: Black
  • Eye color: Black
  • Body shape: Hourglass
  • Shoe size: 7

Zakia Bari Momo Hot photo Gallery 








 

সবজি হিসাবে শিমের উপকারিতা ও অপকারিতা!

বাংলাদেশের সব এলাকাতেই শিমের চাষ হয়। প্রতি ১০০ গ্রাম শিমে ৮৬ দশমিক ১ গ্রাম জলীয় অংশ আছে। শিমে খনিজ উপাদান আছে ০ দশমিক ৯ গ্রাম, আঁশ ১ দশমিক ৮ গ্রাম ও ক্যালোরি বা খাদ্যশক্তি আছে ৪৮ কিলো ক্যালোরি। এছাড়াও শিমে ৩ দশমিক ৮ গ্রাম প্রোটিন, ৬ দশমিক ৭ গ্রাম শর্করা, ২১০ মি.গ্রাম ক্যালসিয়াম ও ১ দশমিক ৭ মি.গ্রাম লৌহ পাওয়া যায়। এসব উপাদান ছাড়াও শিম জিঙ্ক, ভিটামিন সি ও নানা রকম খনিজ উপাদানে সমৃদ্ধ । নিচে শিমের ১০ উপকারিতা জেনে নিনঃ-

১। গর্ভবতী মহিলা ও শিশুর অপুষ্টি দূর করতে শিম বেশ কার্যকারী।
২। খনিজ উপাদানে সমৃদ্ধ হওয়ায় শিম চুল পড়া কমাতে ও চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে।
৩। কোষ্ঠকাঠিণ্য দূর করে ও কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।
৪। নিয়মিত শিম খেলে তা ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে।
৫। শিমে সিলিকনজাতীয় উপাদান আছে যা হাড় সুগঠিত করে।
৬। কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে ও শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে শিম সাহায্য করে।
৭। নিয়মিত শিম খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে আসে।
৮। শিমের ফুল রক্ত আমাশয় দূর করতে সাহায্য করে।
৯। এ সবজিতে ভিটামিন বি সিক্স বেশি পরিমাণে থাকায় তা স্নায়ুতন্ত্র সুস্থ রাখে ফলে স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়।
১০। এ ছাড়াও কোলন ক্যানসার প্রতিরোধেও এটি কার্যকর ভূমিকা রাখে। ভাজিও খাওয়া যায়।

শিমের ক্ষতিকর দিক:

শিমে আছে সামান্য পরিমাণে ক্ষতিকর সায়ানোজেনিক গ্লুকোসাইড। শুকনো শিমে এ উপাদানের পরিমাণ অপেক্ষাকৃত বেশি। অনেকেই শিমের বিচি আলাদাভাবে রান্না করে খেতে পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে শিমের শুকনো বিচি রান্না করার সময় অবশ্যই একবার পানি পরিবর্তন করে নেয়া উচিত।

এছাড়াও পুষ্টিসমৃদ্ধ হলেও বেশি পরিমাণে শিম খাওয়া কখনোই উচিত নয়। কেননা, অধিক পরিমাণে শিম খেলে অনেক সময় বমি বমি ভাব হতে পারে।

Srabanti hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic Indian Bengali Actress Model

Srabanti hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic Indian Bengali Actress Model

 

Full name: Srabanti Chatterjee
Birthdate: August 13, 1989
Birthplace: Gujarat, India
Occupation: Model, Actress
Years active: 2003–present
Religion: Hindu
Zodiac sign: Leo
Srabanti Chatterjee is a Tollywood popular actress who is well known as named Srabanti. She is very much famous to the young generation for her nice looking physical appearance on the silver screen. Srabanti got much popularity within very short time after releasing her first movie. She comes to the limelight swiftly when her movie Champion was released in 2003. She turned herself into a dream girl to the audience by her sensational acting quality.

Srabanti Chatterjee Early Life:

Srabanti Chatterjee was born on August 13, 1989, in Gujarat, India. She was very much interested showbiz arena from her early life in that way, Srabanti builds up a career in film industry. Srabanti’s friends encouraged her very much to enter in the acting world. She studied at Sarada Vidyapith Girl’s School.

Srabanti Chatterjee Career:

Srabanti Chatterjee made her debut in silver screen with the movie Mayar Badhon in 1997. She is a successful Indian Bengali film actress who comes to limelight around the Tollywood film industry with the movie Champion. However, her film career being interrupted after her marriage with Rajib Biswas.
In 2008, Srabanti comes back to the showbiz arena with the film Bhalobasa Bhalobasa. She acted in the blockbuster movie Deewana with co-actor Jeet and directed by Rabi Kinagi in 2013. She also acted with Tollywood superstar Dev in the movie Bindaas directed by Rajib Biswas. It has been discussed that she may perform in the Bangladeshi films.

Bangladeshi Movie Debut:

Srabanti Chatterjee kicks off the journey in the Bangladeshi film with the movie Shikari with co-actor Shakib Khan, King Khan of Bangladesh. This is the joint venture movie of Bangladesh and India. The action thriller movie is directed by Joydip Mukherjee under Bangladeshis production house Jaaz Multimedia.

Srabanti Chatterjee Personal Life:

Srabanti Chatterjee married to a film director, Rajib Biswas in 2003. They have a boy named Zinuk. Recently, the couple’s relationship had deteriorated and Srabanti sent a legal notice to the Rajib Biswas for divorce.
Srabanti again married Krishan Vraj, a model and photographer on July 2017 after a year courtship. The couple met each other a year ago in Mumbai and fall in love. After the marriage, she posts a photo on Twitter where Srabanti has told, ‘The royal journey begins’.
After only 85 days together the couple called it quit and they got mutually divorced. She had no allegation to the Krishan Vraj and wishes a good future life for him.Srabanti confesses to media that she got divorced from Vraj and want to concentrate on work and son’s study. Her son currently studying in class eight.
Srabanti Chatterjee Height Weight and Body Measurement:
  • Height: 5 feet 4 inches
  • Weight: 52kg
  • Bra size: 34B
  • Waist size: 27 inches
  • Hip size: 36 inches
  • Body measurement: 34-27-36  inches
  • Hair color: Black
  • Eye color: Brown
  • Body shape: Hourglass
  • Shoe size: 8

Srabanti hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic BD Actress Model 

 





















PEOPLE CAME HERE BY SEARCHING:


    srabonti pic; srabonti hot photo; srabonti hot pic; srabanti photo; srabanti HD photo; bangali Sarbanti hd image 2016; srabanti hd wallpaper; srabonti hd pic; sabonti hot photo download; srabanti chatterjee photos; srabanti image; bangla srabonti photo; shrabanti photo; Srabanti pic; Sabanti photo; srabonti hot photos; sarabonti photo; www srabonti photo com; Shrabonti chatterji hd pic; srabanti hd; HD Bangla photo; srabanti; srabanti hot photos; srabontir pic; www srabonti com; sabonti lmages full hd; srabanti hot picture; srabonti chattarjee hd photo; hot srabonti pic; pic of srabanti; srabonty pic; Bengali film photo downloading HD; bengoli actress hot hd image; www srabonti chaterje x com; SRABANTIPHOTO; www shrawanti Hd; all bangali nayika wellpaper; www Srabonti Hd photo 2016 com; sabonti; srabonti hd picture; srabonti hd wallpapers; srabonti pics; srabontir photo; www Kolkata all bangla movie actress photos com; www Bingali H D All photas; sabanti hd photo•com; Bengali actress full hd nice photo; srabahti hot photo; srabanti photos; srabonti hd photos; sarabonti hd pic; srabnti hot; kolkata movie actress wallpaper; srabnti photo; Srabonti hot photo com; bagole heroen sabonte potos; photos of srabonti; sarabonti photos; Srabanti Chatterjeee down load photos; srabonti actor picture; srabonti hd; Bangali horoin photo hd; srabonti hot photo dawlot; kolkata actress hd photo; Shikari movie Srabanti Chatterjee images; shuvosree hd photo wallpaper download; Srabanti Chatterjee free wallpaper image; srabanti chatterjee image; Srabanti cute picture; srabanti photo download; srabonti best nice hd photo; srabonti chatterjee hot hd pic most recent; Bangla Nayika Srabanti photo; srabonti hot images; Srabonti hot in saree; Srabonti hot photo HD; srabonti naked photo tollywod 2015; srabonti photo kolkata; srabonty actress hot photo; hot srabonti photos; hptt /sabanti www com; imaj srabhanti; kolkata actors srabonti photo albem; Beguli shinema shabontika nayika Photos Hd com; kolkata actress srabonti photo; Sabanti Hd images; sabonte ka hd photo in; bengali actres srabonti pics; sabonti hot pic; sarabanti poto kol; sarabantiphoto bd; bengali actress srabanti chatterjee images; srabanti chatterjee hd photo; srabanti chatterjee hot video; srabanti HD wallpapers; Srabanti hot images; srabonti chatterjee hd wallpapers; bengali srabonti photos; srabonti full hd photos; srabonti hd images bengali married

ঘন ঘন হাঁচি দেয়া প্রতিরোধের উপায়

ঘন ঘন হাঁচি দেয়া প্রতিরোধের উপায় 

কেউ যখন ঠান্ডায় আক্রান্ত হয় তখন নাক দিয়ে পানি ঝরা, নাকের ভেতরে যন্ত্রণা অনুভব করা, শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া এবং অবশ্যই বার বার হাঁচি আসার সমস্যায় ভুগেন। হাঁচি ঠান্ডার সাথে সম্পর্কিত একটি সাধারণ সমস্যা। এটি তেমন কোন মারাত্মক সমস্যা নয় কিন্তু এটি যদি অনবরত হতে থাকে তাহলে তা বিরক্তিরই সৃষ্টি করে। কিছু সাধারণ ঘরোয়া উপায়ে এই সমস্যাটির সমাধান করা সম্ভব। চলুন তাহলে সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিই।

১। বিছুটি গাছ

অনবরত হাঁচি দেয়ার সমস্যাটির সমাধানের সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে বিছুটি গাছ। যেকোন ধরণের অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া এবং অ্যালার্জির কারণে সৃষ্ট হাঁচি থেকে মুক্তি দিতে পারে বিছুটি পাতা। ফুটন্ত পানিতে বিছুটি পাতা দিয়ে চা তৈরি করুন এবং দিনে ২-৩ বার এই চা পান করুন।

২। পিপারমেন্ট অয়েল

পিপারমেন্ট অয়েলের অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান শুধু হাঁচিই প্রতিরোধ করেনা গুমোট নাকের সমস্যা থেকেও মুক্তি দিতে পারে। ফুটন্ত পানির মধ্যে কয়েক ফোঁটা পিপারমেন্ট অয়েল মিশিয়ে নিন। এরপর আপনার মাথাটি একটি বড় তোয়ালে দিয়ে ঢেকে ভাপ নিন। এর ফলে নাক পরিষ্কার হবে এবং সহজে শ্বাস নিতে পারবেন।

৩। ক্যামোমিল চা

এক কাপ গরম চা সব সময় ঠান্ডা ও কফ এর সমস্যায় আরাম দিতে পারে। ১টি পাত্রে পানি ফুটিয়ে নিন, এর মধ্যে কয়েকটি শুকনো ক্যামোমিল ফুল দিন। কিছুক্ষণ পর মিশ্রণটি ছেঁকে নিন। এর সাথে মধু মিশিয়ে গরম গরম পান করুন। দিনে দুইবার এটি পান করলে অনবরত হাঁচি থেকে মুক্তি পাবেন।

৪। ভিটামিন সি

নিয়মিত সাইট্রাস ফল খাওয়া ভালো। লেবু, কমলা, জাম্বুরা ও আঙ্গুর ফল ঘন ঘন হাঁচির সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। হারবাল চায়ের সাথে লেবুর রস মিশিয়ে পান করলে ইতিবাচক ফল পাবেন।

৫। গোলমরিচ

অ্যান্টিবায়োটিক ও অ্যান্টিভাইরাল উপাদান সমৃদ্ধ হওয়ায় গোলমরিচ বিভিন্ন প্রকারের শ্বসনতন্ত্রের সমস্যা মোকাবিলায় এবং হাঁচি নিরাময়েও সাহায্য করে। কুসুম গরম পানিতে গোলমরিচের গুঁড়া মিশিয়ে দিনে ২-৩ বার পান করুন, গারগল ও করতে  পারেন।

৬। আদা

নাকের সমস্যার সমাধানের জন্য আদা প্রাচীনকাল থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে। ঘন ঘন হাঁচি দেয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আদাকুঁচি চিবাতে পারেন। এছাড়াও ১/২ চামচ আদার রস প্রতিদিন পান করতে পারেন।  

রসুনের কোয়ার তীব্র ঘ্রান হাঁচির সমস্যা দূর করতে সাহায্য করতে পারে। চিকেন স্যুপের সাথেও রসুন ব্যবহার করতে পারেন।    

হাঁচি দেয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। তবে অনবরত হাঁচি আসতে থাকলে তা নিজের জন্য   ও আসে পাশের সবার জন্যই বিরক্তিকর ও বিব্রতকর। ধুলা বালি, পরাগ ও পোষাপ্রাণীর কারণে অ্যালার্জির সৃষ্টি হতে পারে । অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়ার ফলে হাঁচি আসতে পারে। আবার কোন কোন ব্যক্তি উজ্জ্বল সূর্যালোকের সংস্পর্শে আসা মাত্রই হাঁচি দিতে শুরু করে। উপরে বর্ণনাকৃত পদ্ধতিগুলোর যে কোনটি অনুসরণ করে দেখুন বিব্রতকর হাঁচির সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।  

Mithila hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic BD Actress Model

Some Lesser Known Facts About Rafiath Rashid Mithila

  • Does Rafiath Rashid Mithila smoke?: No
  • Does Rafiath Rashid Mithila drink alcohol?: Not Known
  • Rafiath Rashid Mithila is well-known and multi talented Bangladeshi model and actress who is perfect in various fields like acting, modelling, singing, dancing, painting & teaching.
  • She is a trained dancer who learned dancing skills from the ‘Benuka Lolitokala Dance Academy’, music from ‘Hindol Sangeet Academy’ and acting from ‘Lok Fashion Academy’.
  • She started her career in 2002 as a ramp model.
  • She worked in the number of TVC ads for the products of ‘Meril’, ‘Bajaj’, ‘Close up’ and ‘Aktel’.
  • She got popularity in 2008, from Habib Wahid’s superhit song ‘O amar moina go’ in which she appeared as a model.
Bio
Real NameRafiath Rashid Mithila
NicknameMithila
Profession Model, Actress, Singer, Development Worker, Teacher & Professor, Programmer Analysts
Physical Stats & More
Height (approx.)in centimeters- 163 cm
in meters- 1.63 m
in feet inches- 5’ 4”
Weight (approx.)in kilograms- 55 kg
in pounds- 121 lbs
Figure Measurements (approx.)32-29-31
Eye ColourDark Brown
Hair ColourLight Brown
Personal Life
Date of Birth25 May
Age (as in 2017) Years
Birth PlaceDhaka, Bangladesh
Zodiac sign/Sun signGemini
NationalityBangladeshi
HometownDhaka, Bangladesh
SchoolLittle Jewels School, Chittagong, Bangladesh
Viqarunnisa Noon School and College, Dhaka, Bangladesh
CollegeBRAC University, Dhaka University
National University, San Diego, California
University of Minnesota, Minneapolis, Minnesota
Educational QualificationGraduated, Post-Graduated in Political Science, B.Ed, M.Ed
DebutTV: House Full (2008)
FamilyFather- Not Known
Mother- Not Known
Brother- Not Known
Sister- Not Known
ReligionIslam
AddressNot Known
HobbiesDancing, Cooking, Travelling
Favourite Things
Favourite FoodBeef, Chicken, Fish
Favourite ActorsFerdous Ahmed, Arifin Shuvo
Favourite ActressesIdina Menzel, Roxy Darr
Favourite SingerMadonna
Favourite ColoursPink, Yelllow, Cream
Favourite AttireSaree
Favourite DestinationBangkok
Boys, Affairs and More
Marital StatusDivorced
Affairs/BoyfriendsNot Known


Marriage Date3 August 2006
ChildrenSon- N/A
Daughter- Ayra Tehreem Khan (b. 2013)

 

Mithila hot & Sexy Viral Scandal Photos Pic BD Actress Model

 















শিক্ষা জীবনে সকল কাগজ পত্রে আমার বা আমার বাবা বা মায়ের নাম বা কোন তথ্য একই কিন্তু NID কার্ডে ভিন্ন

শিক্ষা জীবনে সকল কাগজ পত্রে আমার
বা আমার বাবা বা মায়ের নাম বা কোন তথ্য একই কিন্তু
NID কার্ডে ভিন্ন

আমার শিক্ষা জীবনে সকল কাগজ পত্রে আমার
বা আমার বাবা বা মায়ের নাম বা কোন তথ্য একই কিন্তু
NID কার্ডে ভিন্ন।
এতে কি কি সমস্যা হতে পারে ? সমাধানের উপায় কি ?
জবাবঃ আপনার শিক্ষা সংক্রান্ত সনদ ও NID কার্ডে
তথ্যের ভিন্নতা থাকলে আপনার চাকরীর ক্ষেত্রে দারুন
সমস্যা হতে পারে।বিশেষ করে সরকারি চাকরির
ক্ষেত্রে।কারণ ছোট্ট ১টা ভুলের কারনে সনদ পত্র বা NID
কার্ডের অর্থ ভিন্ন হয়ে যাবে।
সমাধানঃ nidwডটgovডটbdডট
com থেকে ১টা সংশোধনি
ফরম ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিবেন। উক্ত ফরম পূরণ
করে আপনার জন্ম নিবন্ধ ও সার্টিফিকেটের কপি
সত্যায়িত করে ফরমের সাথে যুক্ত করবেন। সোনালী
ব্যাংকে ৩৫০ টাকা জমা দিবেন।টাকা জমার চালান ও
কাগজ পত্র সহ আপনার মূল জাতীয় পরিচয় পত্র বা স্মার্ট
কার্ডের কপি আপনার জেলার আঞ্চলিক নির্বাচন
কমিশন অফিস বা শাখাতে জমা দিবেন।আপনার কার্ডটি
সংশোধন হয়ে আসবে।
মনে রাখবেন, যদি আপনি প্লাস্টিক কপি এনালগ NID
জমা দেন তবে আপনাকে সংশোধিত নতুন একটি কপি
দিবে।
আর যদি আপনি স্মার্ট কার্ড দিয়ে থাকেন তবে
আপনাকে আপনার স্মার্ট কার্ডতো ফেরত দিবেই সাথে
১টা প্লাষ্টিক কার্ড দিবে। আপনার NID তে যে ভুলটা
উহ্য ছিল তা উহ্যই থাকবে।তবে আপনার ডেটা সঠিক
থাকবে।আপনার ফটোকপি ইত্যাদি সুবিধার্থে আপনাকে
১টা প্লাস্টিক কপি দিবে যেখানে সকল তথ্য সঠিক উহ্য
থাকিবে।
সংশোধন হতে সময় লাগতে পারে ৩ মাস।

পায়খানা নিয়মিত না হওয়ার কারণ ও তার সমাধান?

পায়খানা নিয়মিত না হওয়ার কারন হল কোস্টকাঠিন্য। খুব ভালো একটা প্রশ্ন কোষ্ঠ কাঠিন্য হয়না এমন লোক খুব কম আছে। ভাল একটা প্রশ্ন করার জন্যে শুরুতে আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।প্রতিদিন পানি খাবেন- ১৫ থেকে ২০ গ্লাস
আশযুক্ত খাবার অর্থাৎ টাটকা শাক-সবজি, ফল মূল
বেশি বেশি খাবেন।
সকাল এবং রাতে ২ চামচ ইসুফগুলের ভুষি এক গ্লাস
পানিতে মিশিয়ে পর পর দুই সপ্তাহ খাবেন। রাতে এক গ্লাস কুসুম গরম দুধ খাওয়া যেতে পারে।
পরপর তিনদিন
পায়খানা না হলে দুইটা অথবা তিনটা গ্লিসারিন
সাপোজিটর মলদ্বারে নির্দেশ মত ব্যবহার করতে হবে।
মলত্যাগের বাসনা নিয়ে সকালে হউক বা রাতে হউক
একটি নির্দিষ্ট সময় প্রতিদিন টয়লেটে যেতে হবে। মানুষ অভ্যাসের দাস সে অভ্যাস নিজের মধ্যে গড়ে তুলতে হবে।
এতো কিছুর পরেও যদি সুফল না আসে তা হলে অবশ্যই একজন
চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। এটাকে বাউয়েল
ট্রেনিং বলা হয়। এগুলোর পরেও যদি সুফল
না আসে তাহলে একজন সার্জনের পরামর্শ নিতে হবে।

লেবুর খোসা খেলে ১৩ উপকার মিলবে

লেবু খেলে যতটা শারীরিক উপকার পাওয়া যায়, তার থেকে অনেক বেশি পাওয়া যায় লেবুর খোসাটা খেলে। আসলে বেশ কিছু পরীক্ষার পর এ কথা পানির মতো পরিষ্কার হয়ে গেছে যে লেবুতে যে পরিমাণে ভিটামিন রয়েছে, তার থেকে প্রায় ৫-১০ গুণ বেশি রয়েছে লেবুর খোসায়। সেই সঙ্গে মজুত রয়েছে বিটা ক্যারোটিন, ফলেট, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাশিয়াম, যা নানাভাবে শরীরের উপকারে লেগে থাকে। যেমন ধরুন-
রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার উন্নতি ঘটে
বেশ কিছু কেস স্টাডি অনুসারে, লেবুতে উপস্থিত ডায়াটারি ফাইবার এবং ভিটামিন সি, শরীরে প্রবেশ করার পর এমন খেল দেখায় যে দেহের রোগ প্রতিরোধি ব্যবস্থা দারুন শক্তিশালী হয়ে ওঠে। ফলে ছোট-বড় কোনও রোগই ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। সেই সঙ্গে সংক্রমণের মতো রোগও দূরে থাকতে বাধ্য হয়।
কিডনি স্টোনের মতো রোগ দূরে থাকে
গবেষণায় এমনটা দেখা গেছে, নিয়মিত লেবুর খোসা খাওয়া শুরু করলে শরীরে সিট্রিক অ্যাসিডের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। যার প্রভাবে কিডনিতে স্টোন হওয়ার সম্ভাবনা একেবারে থাকে না বললেই চলে। তাই এমন ধরনের রোগের খপ্পরে পরতে না চাইলে নিয়মিত লেবুর খোসা খেতে ভুলবেন না যেন!
কনস্টিপেশনের মতো রোগের প্রকোপ কমে
লেবুর খোসায় উপস্থিত ডায়াটারি ফাইবার শরীরে প্রবেশ করা মাত্র এমন কিছু খেল দেখায় যে কনস্টিপেশনের মতো রোগের প্রকোপ কমতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে আলসার এবং অ্যাসিড রিফ্লাক্সের মতো সমস্যাও কমে যায়। তাই প্রতিদিন সকালেই যাদের মল ত্যাগ করতে গিয়ে কষ্ট সহ্য করতে হয়, তাদের রোজের ডায়েটে লেবুর খোসকে অন্তর্ভুক্ত করা ছাড়া আর যে কোনও উপায় নেই, তা তো বলাই বাহুল্য!
ক্যানসারের মতো মারণ রোগ দূরে পালায়
লেবুর খোসায় উপস্থিত স্য়ালভেসস্ট্রল কিউ ৪০ এবং লিমোনেন্স নামে দুটি উপাদান ক্যানসার সেলের ধ্বংসে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। ফলে নিয়মিত লেবুর খোসা খেলে শরীরের ভিতরে ক্যানসার সেলের জন্ম নেওয়ার কোনও সম্ভাবনাই থাকে না। এখানেই শেষ নয়, লেবুর খোসা খাওয়া মাত্র ব্যাকটেরিয়াল এবং ফাঙ্গাল ইনফেকশেনে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।
মুখ গহ্বরের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে
ভিটামিন সি-এর ঘাটতি হলে মুখ গহ্বর সংক্রান্ত একাধিক রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পায়। তাই তো নিয়মিত লেবুর খোসা খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ এতে উপস্থিত ভিটামিন সি এবং সাইট্রিক অ্যাসিড মাড়ি থেকে রক্ত পড়া, জিঞ্জিভাইটিস সহ একাধিক রোগের প্রকোপ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।
সারা শরীরে রক্তের প্রবাহে উন্নতি ঘটে
লেবুর খোসা খাওয়া মাত্র শরীরের ভিতরে এমন কিছু রদবদল হতে শুরু করে যে সারা শরীরে রক্তের সরবারহ বাড়তে শুরু করে। ফলে দেহের প্রতিটি কোনায় অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত পৌঁছে যাওয়ার কারণে সার্বিকভাবে শরীরের কর্মক্ষমতা বাড়তে সময় লাগে না। ফলে ছোট-বড় সব ধরনের রোগই দূরে পালায়।
দেহের ওজন নিয়ন্ত্রণে চলে আসে
পেকটিন নামে একটি উপাদান প্রচুর মাত্রায় থাকায় লেবুর খোসা নিয়মিত খেলে ওজন কমার প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত হয়। কারণ এই উপাদানটি শরীরে উপস্থিত অতিরিক্ত চর্বিকে ঝড়িয়ে ফেলতে বিশেষভাবে সাহায্য করে থাকে।
হার্টের ক্ষমতা বাড়ে
লেবুর খোসায় উপস্থিত পলিফেনল নামে একটি উপাদান শরীরে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। অন্যদিকে লেবুর পটাশিয়াম ব্লাড প্রেসারকে নিয়ন্ত্রণা রাখে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই হার্টের রাগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে। তাই তো যাদের পরিবারে কোলেস্টেরল, উচ্চ রক্তচাপ এবং হার্টের রোগের ইতিহাস রয়েছে তারা প্রতিদিনের ডায়েটে লেবুর খোসাকে অন্তর্ভুক্ত করুন। দেখবেন উপকার পাবেন।
লিভারে ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়
বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত লেবুর খোসা খাওয়া শুরু করলে শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের পরিমাণ এত মাত্রায় বেড়ে যায় যে লিভারের ভিতরে জমে থাকা টক্সিক উপাদানেরা বেরিয়ে যেতে শুরু করে। ফলে শরীরে এই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গটির কর্মক্ষমতা বাড়তে সময় লাগে না।
হাড় শক্তপোক্ত হয়ে ওঠে
প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন সি এবং ক্যালসিয়াম থাকার কারণে লেবুর খোসা খাওয়া শুরু করলে ধীরে ধীরে হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটতে শুরু করে। সেই সঙ্গে ইনফ্লেমেটরি পলিআর্থ্রাইটিস, অস্টিওপরোসিস এবং রিউমাটয়েড আথ্রাইটিসের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।
ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়
একাধিক কেস স্টাডিতে দেখা গেছে, লেবুর খোসার ভিতরে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের নিচে জমে থাকা টক্সিক উপাদানদের বের করে দেয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ত্বকের বয়স কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে বলিরেখা যেমন কমে, তেমনি ত্বক টানটান হয়ে ওঠে। এই কারণেই তো বয়স ৩০-এর কোটা পরলেই প্রতিদিন লেবুর খোসা খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকেরা।
হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটে
ফাইবার সমৃদ্ধ যে কোনও খাবার হজম ক্ষমতার উন্নতিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আর এই উপাদানটি প্রচুর পরিমাণে রয়েছে লেবুর খেসায়। তাই তো বদ-হজন থেকে গ্যাস-অম্বল, যে কোনও ধরনের হজম সংক্রান্ত সমস্যায় এই প্রকৃতিক উপাদানটি দারুন উপকারে আসে।
স্ট্রেসের মাত্রা কমে
লেবুর খোসায় উপস্থিত সাইট্রাস বায়ো-ফ্লেভোনয়েড শরীরের ভিতরে প্রবেশ করার পর এমন খেল দেখায় যে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমতে শুরু করে। ফলে সার্বিকভাবে মন, মস্তিষ্ক এবং শরীর একেবারে চাঙ্গা হয়ে ওঠে। তাই তো এবার থেকে যখনই দেখবেন শরীর আর চলছে না, তখন অল্প করে লেবুর খেসা নিয়ে চটজলদি খেয়ে ফেলবেন। দেখবেন উপকার মিলবে।

১২-টি অবিশ্বাস্য খাবার যা আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করবে

আপনি বেঁটে - এটা আপনার পছন্দ না। অনেক ব্যর্থ চেষ্টা করে দেখেছেন, যদি ফুটখানেক লম্বা হওয়া যায়! তাহলে এই খাবারগুলো একবার চেষ্টা করে দেখুন না - যদি লম্বা হওয়া যায়। হ্যাঁ, আপনি ঠিকই পড়েছেন। আপনি লম্বা হওয়ার জন্য খাটতে চান - আপনার প্রয়োজন খাবার ও কসরতের ওপর জোর দেওয়ার। মানুষের উচ্চতায় বংশানুক্রম একটা গুরুত্বপূর্ণ কারণ। আপনার বাড়ন্ত বয়সে আপনি কিছু জিনিসই করতে পারেন, যাতে আপনার পক্ষে সম্ভব সর্বোচ্চ উচ্চতা পেতে পারেন - তার মধ্যে একটা হল সঠিক খাওয়া দাওয়া। লম্বা হওয়ার জন্য অনেকেই আছেন, শুধু কসরতের ওপর জোর দেন - যেমন হাত/পা প্রসারিত করা (স্ট্রেচিং)বা লাফান দড়ি (স্কিপিং)। কিন্তু কিছু অত্যাবশ্যক ভিটামিন ও মিনারেল আছে, যেগুলো শরীরের দরকার স্বাভাবিক প্রাকৃতিক উপায়ে লম্বা হতে গেলে।
প্রোটিন ও পুষ্টির অভাবে, বেড়ে ওঠার হার স্থিমিত হয় এবং লম্বা হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। তাই এই সব খাবারের সাথে সম্পূরক পুষ্টি যোগানকারি প্রোটিন ও ভিটামিন,আপনার খাদ্য তালিকাতে যোগ করুন লম্বা হতে চাইলে।
যেমন ধরুন, ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করে, কারণ এতে ক্যালসিয়াম গ্রহণযোগ্যতা বাড়ায়, হাড়েড় গঠন সবল হয় ও রোগ প্রতিরোধ শক্তি বেড়ে ওঠে। নষ্ট হয়ে যাওয়া টিস্যু সারিয়ে, নতুন টিস্যুর গঠনে সাহায্য করে প্রোটিনযুক্ত খাবার আপনাকের স্বাস্থ্যবান বানায় ও লম্বা হতেও সাহায্য করে।
ভিটামিন ডি ও প্রোটিন ছাড়াও, ক্যালসিয়াম আরেকটা অতি প্রয়োজনীয় মিনারেল উচ্চতা বাড়ানোর জন্য। ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার আপনার হাড়ের বেড়ে ওঠা ও শক্তিশালী হতে সাহায্য করে থাকে। তাই শক্ত, সবল, স্বাস্থ্যকর হাড়ের জন্য ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার, তার সাথে দুগ্ধ জাতীয় খাবার যেমন দুধ, পনীর (চিজ্), দই ইত্যাদি। এখানে দেখুন এরকম কিছু অবিশ্বাস্য খাবার যা আপনার লম্বা হওয়ার প্রচেষ্টায় সাহায্য করবে। উচ্চতা বাড়াতে এগুলো আপনার খাদ্য তালিকায় অবশ্যই রাখুন। এই খাবারগুলো ছাড়াও কিছু কসরত যেমন, লাফান দড়ি (স্কিপিং), সাঁতার কাটা, হাত/পা প্রসারিত করা যাতে পেশী নমনীয় হয়, এরকম কিছু জিনিস যা লম্বা হতে সাহায্য করবে।
মাছ

মাছ

সামুদ্রিক মাছ প্রোটিন ও ভিটামিনে ভরপুর। স্যালমন ও টুনার মত মাছে আছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন ডি ও প্রোটিন, যেটা আপনার উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করে।
ডিম

ডিম

ডিম একটা দারুণ খাবার, ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ। সুস্থ্য শরীর ও শক্ত হাড়ের জন্য খাবারে সেদ্ধ ডিম অবশ্যই রাখুন। সেদ্ধ কারণ এটা একটা ভাল উপায় রান্না করার, যাতে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও পুষ্টিগুলো হারিয়ে যায় না।
সয়া

সয়া

হাড়ে যাতে ভিটামিন ও ক্যালসিয়াম সঠিক ভাবে প্রবেশ করে, তাই সয়াযুক্ত খাবার অবশ্য্ই খান। যেমন ধরুন, সয়াবীন ও সয়াযুক্ত দুধ।
তোফু

তোফু

ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ ও কম ক্যালোরিযুক্ত তোফু একটা অতি আবশ্যক খাবার নিজের খাদ্য তালিকার জন্য। তোফুতে মেদ বা ফ্যাট কম, এবং ওজন কমাতেও সাহায্য করে থাকে।
কুমড়োর বিচি

কুমড়োর বিচি

কুমড়োর বিচি শরীরের নষ্ট হয়ে যাওয়া টিস্যু সারায়, এবং নতুন টিস্যুর গঠনেও সাহায্য করে। এছাড়া এই বিচিতে থাকা এ্যামিনো এ্যাসিড শরীরের বেড়ে ওঠায় খুব সাহায্য করে থাকে।
গাজর

গাজর

গাজরে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি ও এ আছে। ভিটামিন এ আপনার হাড়ের ক্যালসিয়ামের মাত্রা ঠিক রাখে। এতে হাড় শক্ত ও সুস্হ্য্ থাকে। এছাড়াও ভিামিন এ আপনার দৃষ্টিশক্তি বাড়ায় ও ত্বক উজ্জ্বল করে।
পালং শাক

পালং শাক

এটা আরেকটা দুর্ধর্ষ খাবার, যা আপনার উচ্চতা বাড়াতে দারুণ সাহায্য করে। এই সবুজ শাকটিতে প্রচুর পরিমাণে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও পুষ্টি আছে। চেষ্টা করবেন পালং শাক ও ব্রোকোলি আপনার নিয়মিত খাবারের অঙ্গ যেন হয়।
দুধ

দুধ

বেড়ে ওঠা ও হাড় শক্ত রাখতে, ক্যালসিয়াম খুবই প্রয়োজনীয় শরীরের জন্য। দুধ উচ্চতা বর্ধক হিসেবে কাজ করে, এবং এতে উপস্থিত ভিটামিন এ ক্যালসিয়াম ধরে রাখতে সা্হায্য করে থাকে। সুস্থ্য শরীরের জন্য, দিনে ২-৩ গ্লাস দুধ অবশ্যই খাবেন।
কলা

কলা

মজবুত ও স্বাস্থ্যকর হাড়ের জন্য, আপনার নিয়মিত কলা খাওয়া উচিত। উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করা ছাড়াও, কলা হজমে সাহায্য করে ও পেট পরিস্কারও করে।
মুরগির মাংস

মুরগির মাংস

অন্য সব আমিষ খাবারের সাথে মুরগির একটা বড় পার্থক্য, যে এতে প্রোটিনের মাত্রা সবচেয়ে বেশি। মুরগির মাংস খেলে শরীরের টিস্যু ও পেশীর গঠনে সাহায্য করে প্রোটিন।
সবুজ বিনস্

সবুজ বিনস্

হাড়ের টিস্যুর গঠন, হাড়ের বেড়ে ওঠা ও শরীরের রক্ত চলাচলে উন্নতি করা - সবেতেই মিনারেলের প্রয়োজন। আপনি যদি প্রাকৃতিক নিয়মে নিজের উচ্চতা বাড়াতে চান, তাহলে প্রোটিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ সবুজ বিনস্ অবশ্যই খান।
দই

দই

যে কোনও দুগ্ধ জাতীয় খাবার প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ হয়ে থাকে। এছাড়া দই-এ ভিটামিন এ, বি, ডি ও ই আছে, যা উচ্চতা বাড়াতে সাহা্য্য করে। হজমের জন্যেও দই খুব ভাল।

Total Pageviews